সুন্দরগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে দল থেকে অব্যাহতি

|

অব্যাহতি পাওয়া স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেল।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেলকে দল থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

গতকাল বুধবার (২০ অক্টোবর) কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেল দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ, সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নসহ গঠনতন্ত্র বিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগ রয়েছে। তাই গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ৩৪ (গ) মোতাবেক এবং সংগঠনের সভাপতি রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবুর নির্দেশক্রমে ২০ অক্টোবর সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়কের পদ থেকে আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেলকে অব্যাহতির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এদিকে, তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে অংশ নিতে আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেল ৬ নং সর্বানন্দ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে সুন্দরগঞ্জ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়ন আবেদন ফরম সংগ্রহ করেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেল ২০০১ সালে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল বামনডাঙ্গা আঞ্চলিক শাখার যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং ২০০৩ সালে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের পদে ছিলেন। তার বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুরের ঘটনায় সুন্দরগঞ্জ থানায় জিআর ২৭৫/২০১০ নং মামলা দায়ের করা হয়েছিল। কিন্তু ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে রাসেল নিজেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলো।

পরে চলতি বছর তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটি এবং জেলা ও উপজেলা কমিটির নিকট লিখিত অভিযোগ করেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply