সয়াবিন তেলের বাজার আবার অস্থির

|

অস্থির ভোজ্যতেলের বাজার। নিয়ন্ত্রণে নেই ক্রেতার প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় এই পণ্যের দাম। নতুন করে এক লাফে বোতলজাত সয়াবিনের দাম লিটারে বেড়েছে ৭ টাকা। এক লিটার তেল কিনতে এখন ক্রেতাকে গুনতে হবে ১৬০ টাকা।

গ্রাম কিংবা শহর, সবখানেই আজ থেকেই কার্যকর হবে নতুন দাম। বাজারে ইতোমধ্যেই বাড়তি দামের তেল আসতে শুরু করেছে। তবে কিছু কিছু দোকানে পুরনো দামের তেলও থাকায় আগের দামেই পাওয়া যাচ্ছে তেল।

ব্যবসায়ীরা জানান, বেশ কয়েকদিন আগ থেকে দাম বাড়ার ইঙ্গিত দেয় উৎপাদক প্রতিষ্ঠান। এজন্য বাজারে তেলের সরবরাহ কমিয়েও দেয় কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান। ভোক্তারা জানান, আয় তেমন না বাড়লেও দামের উত্তাপে অবস্থা বেগতিক। দফায় দফায় দাম বাড়ায় আয়ের সঙ্গে ব্যয়ের সমন্বয় হচ্ছে না।

তবে তেলের দাম বৃদ্ধি যৌক্তিক বলে মনে করে বাণিজ্য মন্ত্রনালয়। কিন্তু স্বল্প আয়ের মানুষেদের কম দামে এই ভোগ্য পণ্য পৌঁছে দিতে নতুন উদ্যোগ নেই।

গতকাল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে সয়াবিন তেলের দাম বাড়ার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ ভোজ্যতেল পরিশোধনকারী ও বনস্পতি উৎপাদক সমিতি।

আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত সয়াবিন ও অপরিশোধিত পাম তেলের দাম বাড়ায় ট্যারিফ কমিশন ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে তেলের এই দাম নির্ধারণ করেছে সংগঠনটি। ৫ লিটারের এক বোতল তেল পাওয়া যাবে ৭৬০ টাকায়, যা এত দিন ৭২৮ টাকা ছিল। এ ছাড়া খোলা সয়াবিন তেল লিটার প্রতি ১৩৬ টাকা ও বোতলজাত পাম সুপার তেল ১১৮ টাকা দরে কিনতে পারবেন ক্রেতারা।

এর আগে গত ২৭ মে সয়াবিন তেলের দাম এক লাফে লিটারে ৯ টাকা বাড়ানো হয়। দেশের মোট চাহিদার ৯৫ শতাংশ ভোজ্য তেল আমদানি করা হয়। ২০২০ সালের পর থেকে ভোজ্য তেলের আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতির জন্য দেশে কয়েক দফায় সয়াবিন


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply