বাঁচা-মরার ম্যাচে একটু পরই মাঠে নামবে বাংলাদেশ

|

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে বি গ্রুপে কিছুক্ষণের মধ্যেই নামছে বাংলাদেশ ও ওমান। আজ বাংলাদেশকে হারতে পারলে মূল পর্বে ওঠার পথটা অনেকটাই সুগম হবে ওমানের। আর বাংলাদেশের জন্য এটি ডু অর ডাই ম্যাচ।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাত ৮ টায় ওমানের আল আমেরাত স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি।

স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৬ রানের পরাজয় নিয়ে দুনিয়া জুরে বাংলাদেশের সমর্থকরা স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুব্ধ। বিপক্ষ দলের পারফরমেন্স বা পরাজয়ের ক্ষুদ্র ব্যবধানের চেয়ে সবার কাছেই দৃষ্টিকটু লেগেছে বাংলাদেশের খেলার ধরন। অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিজ্ঞতার বিচারে গ্রুপের বাকি দলগুলোর চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে থাকার পরও এমন পারফরমেন্সে হতাশ সবাই। তার উপর ৫৩ রানে স্কটল্যান্ডের ৬ উইকেট ফেলে দেয়ার পরেও যেখানে স্কটিশরা সম্পূর্ণ ২০ ওভার খেলে সংগ্রহ করেছে লড়াকু পুঁজি, সেখানে বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ব্যাটারদের আত্মবিশ্বাসহীন ব্যাটিংয়ের কারণ খুঁজে পেতে মরিয়া সমর্থকেরা।

দুই ওপেনার আউট হবার পর সাকিব এবং মুশফিকের ইনিংস মেরামতের গতি ছিল অতিরিক্ত মন্থর। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও আক্রমণ করার জন্য বেশি সময় ক্ষেপণ করে ফেলায় শেষ দিকের ব্যাটারদের জন্য লক্ষ্যে পৌঁছানো প্রায় অসম্ভব ব্যাপারই হয়ে দাঁড়ায়। তাই, সৌম্য সরকার এবং লিটন দাসদেরও নিতে হবে দায়িত্ব। প্রতিশ্রুতিশীল থেকে ধারাবাহিক পারফর্মার হয়ে উঠতে হবে এ দুজনকে।

বাংলাদেশের বোলিং প্রথম ১২ ওভারে দারুণ আধিপত্য দেখিয়েছে ম্যাচে। কিন্তু শেষ ৮ ওভারে ৮৫ রান হজম করে বোলাররা। মাহমুদউল্লাহর একটি নির্দিষ্ট পরিকল্পনা আছে, যেখানে ১৬ ওভারের মধ্যে স্পিনারদের কোটা শেষ হয়ে যায়। এরপর বাকি ওভারগুলো করেন মোস্তাফিজ, তাসকিন, সাইফুদ্দিনরা। আর এই ছক অনুযায়ী খেললে অপশনের সংখ্যাও কমে যায় মাহমুদউল্লাহর।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply