যুক্তরাষ্ট্রে ট্রেনে এক নারীকে ধর্ষণ, চুপচাপ দেখলো অন্য যাত্রীরা

|

ছবি: সংগৃহীত।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের ফিলাডেলফিয়ায় চলন্ত ট্রেনে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী। এ সময় ট্রেনে অন্যা যাত্রীরা থাকলেও ওই নারীকে সহায়তায় এগিয়ে আসেনি কেউ। খবর এপি।

স্থানীয় পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেছেন, অন্য যাত্রীদের উচিত ছিল ধর্ষণে বাধা দেয়া।

আপার ডার্বি পুলিশ বিভাগের সুপারিনটেনডেন্ট টিমোথি বার্নহার্ড বলেন, বুধবার মার্কেট-ফ্রাঙ্কফোর্ড লাইনে পশ্চিমাঞ্চলগামী একটি ট্রেনে ওই নারী আক্রান্ত হন। ওইদিন রাত ১০টার দিকে ৬৯তম স্ট্রিট টার্মিনালের কাছে ট্রেনটি পৌঁছালে পুলিশকে ডাকা হয়।

বার্নহার্ড আরও বলেন, দক্ষিণ-পূর্ব পেনসিলভানিয়া পরিবহন কর্তৃপক্ষের একজন কর্মী ওই সময় ট্রেনের আশপাশে ছিলেন। তিনি পুলিশকে ফোন করে জানান, ট্রেনের একজন নারী যাত্রীর সাথে অস্বাভাবিক কিছু ঘটছে। এই তথ্য পাওয়ার পর ট্রেনের পরবর্তী স্টেশনে অবস্থান নেয় পুলিশ। পরে সেখানে ট্রেনটি পৌঁছালে ওই নারীকে উদ্ধার এবং একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।পরে ওই নারীকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়।

বার্নহার্ড ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে ‌‘অবিশ্বাস্য দৃঢ় মনোবলের অধিকারী’ বলে অভিহিত করেছেন। পুলিশকে অনেক তথ্য দিয়েছেন ওই নারী। তবে হামলাকারীকে চেনেন না বলে জানিয়েছেন তিনি।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, নির্যাতনের শিকার ওই নারী সুস্থ হয়ে উঠছেন। আশা করি তিনি দ্রুত স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাবেন।

বার্নহার্ড বলেন, ওই নারীর সঙ্গে ঘটে যাওয়া পুরো ঘটনা নিরাপত্তা ক্যামেরায় রেকর্ড হয়েছে। সেখানে দেখা গেছে, ট্রেনে অন্য যাত্রীরা থাকলেও ধর্ষণের শিকার নারীকে সহায়তায় কেউই এগিয়ে আসেনি।

আপার ডার্বি পুলিশ বিভাগের এই সুপারিনটেনডেন্ট বলেন, সেখানে অনেক মানুষ ছিলেন। তাদের বাধা দেওয়া উচিত ছিল; তাদের কারও কিছু করা উচিত ছিল। আমরা সমাজে কোথায় আছি, সেটি তুলে ধরছে এই ঘটনা। এ ধরনের ঘটনা কেউ চোখের সামনে ঘটতে দেবেন? এটা উদ্বেগজনক।

ডেলাওয়্যার কাউন্টি আদালতের রেকর্ড অনুযায়ী, ৩৫ বছর বয়সী ফিস্টন এনগয় নামের ওই যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, তীব্র অশালীন আক্রমণ ও অন্যান্য অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply