হাসিনার সরকার ধর্ম নিরপেক্ষ সরকার: কুমিল্লা প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী

|

পশ্চিমবঙ্গের পরিবহন ও গৃহায়ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মন্দিরে হামলার প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের পরিবহন ও গৃহায়ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, এটা হিন্দু-মুসলমানের ব্যাপার নয়, আমি বিশ্বাস করি যে হাসিনার সরকার ধর্ম নিরপেক্ষ সরকার।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) বিকেলে কলকাতায় গণমাধ্যমের কর্মীদের মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশের হামলা প্রসঙ্গে এ কথা বলেন তিনি।

ফিরহাদ হাকিম বলেন, এটা হিন্দু-মুসলমানের ব্যাপার নয়। যারা অন্যের ধর্মীয় ভাবাবেগকে নষ্ট করে, তারা কোনো ধর্মের মানুষ হয় না। তারা অপরাধী। যারা ধর্ম মানেন না, তারাই এইসব কাজ করেন। এছাড়া কুমিল্লায় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা, দুর্গাপূজার প্যান্ডেল ও মন্দিরে হওয়া হামলার নিন্দা করেছেন তিনি। সেই সাথে তার বিশ্বাস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবেন।

এর আগে সকালের দিকেই বাংলাদেশের হামলা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। সেইসাথে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকেও নিশানা করেছেন তিনি। টুইট করে কুণাল লেখেন, বাংলাদেশ থেকে কিছু উদ্বেগজনক খবর আসছে। পোস্ট ছড়াচ্ছে। যদিও হাসিনা সরকার ও সেদেশেরই বহু মানুষ আপত্তিকর কাজের বিরোধিতা করছেন কিন্তু ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দফতর (পিএমও) নীরব দর্শক কেনো? বিজেপির মেকি হিন্দুত্বের সস্তা নাটক নয়। কার্যকর ভূমিকা নিক কেন্দ্র। আমরা ভারত-বাংলাদেশ দু’দেশেরই সংখ্যালঘু সুরক্ষার পক্ষে।

পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল কুমিল্লার ঘটনা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থানে সন্তোষ প্রকাশ করলেও কলকাতায় অব্যাহত রয়েছে বিক্ষোভ কর্মসূচি। শনিবার বিকেলেও শ্যামবাজার মেট্রো স্টেশনের সামনে বজরং দলের বেশ কিছু কর্মী বিক্ষিপ্ত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে। প্রকাশ্য দিবালোকে বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা ছিঁড়ে পুড়িয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এরপরেই পুলিশের সাথে কার্যত ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায় বজরং কর্মীদের। পুলিশ বাংলাদেশের পতাকার অবমাননা এবং উত্তেজনা তৈরির অভিযোগে ৮ জন বজরং দলের সমর্থককে আটক করেছে।

ইউএইচ/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply