মহানবীর কার্টুন দেখানো সেই শিক্ষকের মৃত্যুবার্ষিকীতে ফরাসি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

|

ছবি: সংগৃহীত

শিক্ষার্থীদেরকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) এর কার্টুন দেখানোর জন্য নৃশংসভাবে হত্যাকাণ্ডের শিকার ফ্রান্সের স্যামুয়েল প্যাটি নামের সেই হাইস্কুল শিক্ষককের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী জন কাস্টেক্স। খবর ফ্রান্স টুয়েন্টিফোর ডটকমের।

৪৭ বছর বয়সী স্যামুয়েল প্যাটি ছিলেন প্যারিসের কনফ্লান্স-সেইন্ট-অনোরাইন শহরতলির একটি স্কুলের শিক্ষক। ২০২০ সালের ১৬ অক্টোবর স্কুলের বাইরে তাকে ছুরিকাঘাতের পর শিরোশ্ছেদ করে এক সন্ত্রাসী। এই ঘটনায় ফুঁসে ওঠে ফ্রান্স। দেশটির শিক্ষকসমাজ এটিকে দেখতে থাকেন শিক্ষা ও মূল্যবোধের বিরুদ্ধে সরাসরি আঘাত হিসেবে। উল্লেখ্য, দেশটিতে রাষ্ট্রব্যবস্থা থেকে চার্চের আলাদা হওয়া এবং ধর্মের সমালোচনার অধিকার সাংবিধানিকভাবে স্বীকৃত।

সেই শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি হত্যার প্রথমবার্ষিকীতে ফ্রান্সের শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী জন কাস্টেক্স। উন্মোচন করা হয় একটি স্মৃতিফলকও। সেখানে হত্যার এই ঘটনাটিকে ‘ভুলবার নয়’ আখ্যা দিয়ে কাস্টেক্স বলেন, প্যাটিকে সম্মান জানানো মানে রাষ্ট্রের মূল্যবোধকে সম্মান জানানো।

প্রসঙ্গত, ক্লাসে বাক-স্বাধীনতার ওপর একটি লেকচার দিতে গিয়ে স্যামুয়েল প্যাটি প্রদর্শন করেছিলেন ফরাসি রম্য-ম্যাগাজিন শার্লি হেবদো-তে প্রকাশিত নবী মুহাম্মদ (স.)-এর একটি ব্যঙ্গচিত্র। তাতেই আপত্তি তোলেন কিছু অভিভাবক এবং তাদের মাধ্যমেই ঘটনাটি রটে যায় পুরো ফ্রান্সে। চটে যায় উগ্রপন্থীরা। এরই ধারাবাহিকতায় ১৮ বছর বয়সী চেচেন শরণার্থী আব্দুল্লাহ আনজরোভ হত্যা করে শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে। এই ঘটনার পর ফরাসি প্রেসিডেন্টও সাফ জানিয়ে দেন, ‘কার্টুন বন্ধ হবে না!’

এদিকে, শিক্ষক প্যাটি হত্যার এক বছরকে কেন্দ্র করে ও ২০২২ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারও চাঙ্গা হয়ে উঠেছে ফ্রান্সের অভিবাসন নীতি নিয়ে বিতর্ক।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply