ভিয়েতনামে করোনা রোধে কুকুর হত্যা, সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড়

|

ছবি: সংগৃহীত

অমিত হাসান রবিন:

করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কায় এক ব্যক্তির ১২টি কুকুরকে হত্যা করা হয়েছে ভিয়েতনামে। খবর শুনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন সেই ব্যক্তি। এই ঘটনার জেরে ব্যাপক তোলপাড় চলছে দেশটিতে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বইছে নিন্দার ঝড়। এরইমধ্যে প্রাণী হত্যা বন্ধে অনলাইন পিটিশনে অংশ নেন দেড় লাখের বেশি মানুষ।

নিজ শহরে বেড়েছে করোনার প্রকোপ, তাই পরিবার পরিজন নিয়ে ২৮০ কিলোমিটার দূরের কা মাউ প্রদেশে পাড়ি জমাচ্ছেন থাই চি এম নামের এক ব্যক্তি। মোটরসাইকেলের এই যাত্রায় সফর সঙ্গী হয়েছে তার প্রিয় কুকুরগুলো।

পোষা প্রাণীর প্রতি থাই’র এমন ভালোবাসার দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তবে তখনও জানা ছিল না কি অপেক্ষা করছে সামনে।

কা মাউ প্রদেশে পৌঁছানোর পরই বাধ্যতামূলক করাতে হয় করোনা পরীক্ষা। ফল পজেটিভ আসায় ৩ স্বজন ও স্ত্রীসহ সবাইকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। আর কুকুরগুলোকে রাখা হয় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কায় মালিককে না জানিয়েই মেরে ফেলা হয় প্রাণীগুলোকে।

কুকুরের মালিক মিন হুয়াং বলেন, কুকুরগুলোকে পুড়িয়ে মারার খবর শুনে আমি এবং আমার স্ত্রী খুবই কান্না করেছি। রাতে একটুও ঘুমাতে পারিনি। বিশ্বাসই করতে পারছি না। কুকুরগুলো আমাদের সন্তানের মতো ছিল। তাদেরকে বাঁচাতে আমরা কিছুই করতে পারলাম না।

এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে দেশটির পশু প্রেমীরা। এরইমধ্যে প্রাণী হত্যা বন্ধ করতে অনলাইন পিটিশনও চালু করা হয়েছে। যার সমর্থন জানিয়েছে দেড় লাখের বেশি মানুষ। যদিও প্রশাসন বলছে, মহামারি রোধে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হবে।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply