সংখ্যালঘু নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত সেই দু’জনের মনোনয়ন বাতিল করলো আওয়ামী লীগ

|

সমালোচনার মুখে নাসিরনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে আবুল হাসেম ও আতিকুর রহমান আঁখির প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মন্দির ও হিন্দু পল্লিতে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ মামলার আসামিদের ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান প্রার্থী করার পর সমালোচনার মুখে তা বাতিল করছে আওয়ামী লীগ। তাদের পরিবর্তে দেয়া হয়েছে নতুন প্রার্থী।

নাসিরনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবুল হাসেমের পরিবর্তে বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য পুতুল রানী বিশ্বাস এবং হরিপুর ইউনিয়নে দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখির পরিবর্তে মো. ওয়াসিম আহমেদকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার বৃহস্পতিবার এই দুই ইউনিয়নে প্রার্থী পরিবর্তনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

দ্বিতীয় দফায় ১১ নভেম্বর ভোটে অংশ নিতে গত মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ নাসিরনগর উপজেলার ১৩ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে। তাতে ২০১৬ সালে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর হামলার মামলার চার্জশিটে নাম থাকা এই দুই আসামিরও নাম থাকায় ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছিল।

২০১৬ সালের ৩০ অক্টোবর ফেসবুকে গুজব রটিয়ে নাসিরনগরে হামলা চালিয়ে মন্দির ও হিন্দু পল্লিতে ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। ওই ঘটনায় নাসিরনগর গৌরমন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক নির্মল চৌধুরী বাদী হয়ে দুই থেকে আড়াই হাজার অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

পরের বছর ১০ ডিসেম্বর ২২৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। ওই আসামিদের মধ্যে রয়েছেন নাসিরনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-প্রচার সম্পাদক আবুল হাসেম এবং হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখি। তারা দু’জনেই ওই মামলায় জামিনে রয়েছেন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply