কলম্বিয়ায় মার্কিন দূতাবাসে হাভানা সিনড্রোমের হানা

|

ছবি: সংগৃহীত।

আবারও আলোচনায় ‘হাভানা সিনড্রোম’। এবার সেই সিনড্রোম দেখা দিয়েছে কলম্বিয়ায় মার্কিন দূতাবাসে। এখানকার বেশ কয়েকজন কর্মী রহস্যজনক অসুস্থতায় ভোগার পর সম্ভাব্য সেই ঘটনার তদন্ত করে দেখছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা।

ডেইলি সাবাহর প্রতিবেদনে জানা যায়, কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোটায় মধ্য সেপ্টেম্বরের পর সেখানকার মার্কিন দূতাবাসের কর্মীরা রহস্যজনক কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদের কানে যন্ত্রণাদায়ক তীব্র শব্দ, অতিশয় ক্লান্তি ও মাথা ঘোরার সমস্যা দেখা দেয়।

২০১৬ সালে প্রথম কিউবার রাজধানী হাভানায় যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার দূতাবাসের কর্মীদের মধ্যে এসব লক্ষণ দেখা দেয়। মাথা ঘোরা, ভারসাম্যহীনতা, কানে কম শোনা, স্মৃতি হারানো ও দুশ্চিন্তার মতো লক্ষণের কথা তখন বলা হয়েছিল। পরে এটা ‘হাভানা সিনড্রোম’ নামে পরিচিতি পায়। যদিও এ ধরনের রহস্যজনক অসুস্থতার কারণ অজানা।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল প্রথম কলম্বিয়ার মার্কিন দূতাবাসে ‘হাভানা সিনড্রোম’ হানা দেয়ার খবর প্রকাশ করে। সংবাদমাধ্যমটি জানায়, কলম্বিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ফিলিপ গোল্ডবার্গ কিছু মেইল পাঠিয়ে মধ্য সেপ্টেম্বরের পর থেকে দূতাবাসের কর্মীদের ‘অজানা স্বাস্থ্যগত সমস্যা’ বা হাভানা সিনড্রোমে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানান।

ঘটনাটি প্রকাশ পাওয়ার পর কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান দুকে নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেন, তার দেশ ‘হাভানা সিনড্রোম’ সংক্রান্ত অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখছে। তবে এ সংক্রান্ত তদন্তে যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্ব দিচ্ছে।

এ পর্যন্ত প্রায় ২০০ মার্কিন এ সমস্যার শিকার হয়েছেন। তাদের অনেকে মাসের পর মাস মাথা ঘোরা ও ক্লান্তিতে ভোগার কথা জানিয়েছেন। নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, যারা রহস্যজনক এ অসুস্থতায় আক্রান্ত হন, তাদের অর্ধেকের বেশি মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার (সিআইএ) কর্মী।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply