মোদিকে ঠেকাতে সোনিয়ার শক্তিশালী জোট

|

ভারতে লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন বিজেপি জোটকে টেক্কা দিতে শক্তিশালী একটি বিরোধী জোট গঠন করছেন কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধি।
এ কারণে বিভিন্ন রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ ও আঞ্চলীক রাজনৈতিক দলগুলোকে গেরুয়াদের বিরোদ্ধে একট্টা করতে চাইছেন তিনি।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, জোট গঠনে ২০টি বিরোধী দলের নেতাদের সম্প্রতি এক নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান সোনিয়া। এতে উপস্থিত ছিলেন- কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি দলের প্রবীন নেতা মনমোহন সিংহসহ দলের শীর্ষ নেতারা।

আগে কংগ্রেসের শরিক দল ছিল সতেরো। নরেন্দ্র মোদির শরিক যখন কমছে থখন বাড়ছে কংগ্রেসের। লোকসভা ভোটের আগে মাঠ গরম করছে দুই প্রধান শিবির।

মোদী-বিরোধী জোটের রাশ নিজের হাতে নিয়ে রাহুল গান্ধি গ্রহণযোগ্যতাও বাড়ানোর এটি একটি প্রয়াশ। বিরোধী-জোটের ওই সভায় প্রতিনিধি পাঠালেও নিজে আসেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মায়াবতী বা অখিলেশ। সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই সনিয়ার প্রশ্ন, ‘মমতা কেমন আছেন? বাংলায় কী পরিস্থিতি?’ সুদীপ বললেন, ‘ভাল। বাংলায় তৃণমূলই সেরা।’ সিপিএমের মহম্মদ সেলিমকে আবার এটা-ওটা খাওয়ার অনুরোধ করে সোনিয়া বললেন, ‘ওহ্, বাংলার কোনও ডিশ নেই না? তবে রসমালাই তো আছে।’

আপাদমস্তক ঘরোয়া আড্ডায় আসলে ভাব জমানোই ছিল সোনিয়ার লক্ষ্য। বিশেষ করে লোকসভা ভোটের যখন আর বেশি বাকি নেই। বিরোধী জোট এখনও সেভাবে দানা বাঁধেনি। তার উপর রাহুলের নেতৃত্বে অনেকে স্বচ্ছন্দ নন বলে গুঞ্জন উঠছে কিছু ক্ষেত্রে।

ভোজ শেষে টুইট করে রাহুল বলেন, অসাধারণ নৈশভোজ। নানা দলের নেতাদের সঙ্গে ঘরোয়া স্তরে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানোর সুযোগ। অনেক রাজনৈতিক কথা হল। তার থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ইতিবাচক শক্তি, উষ্ণতা ও অকৃত্রিম স্নেহ।’ নরেন্দ্র মোদি, অচল সংসদ, রাজ্যসভার ভোট, উত্তর-পূর্বের নির্বাচন, বিজেপির দাদাগিরি, ঔদ্ধত্য- সব নিয়েই কথা হল খাবার টেবিলে। কিন্তু সরাসরি জোট নিয়ে এখনই কথা না বলে চেষ্টা হল জোটের একটি আবহ তৈরি করার।









Leave a reply