কেউ জানে না এমবাপ্পের গোল কেন অফসাইড নয়

|

অফসাইড লাইন না থাকা এবং অফসাইডে এমবাপ্পের গোল বাতিল না হওয়া নিয়ে চলছে বিতর্ক। ছবি: সংগৃহীত

স্পেনকে ২-১ গোলে হারিয়ে নেশনস লিগের শিরোপা জিতেছে ফ্রান্স। ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পের গোলেই জয় নিশ্চিত হয় ফ্রান্সের। তবে বিতর্ক চলছে সেই জয়সূচক মুহূর্ত নিয়েই যে, কেন অফসাইডের কারণে বাতিল হলো না গোলটি।

খেলায় সমতা থাকা অবস্থায় ফরাসি লেফট উইঙ্গার থিও হার্নান্দেজের পাস খুঁজে নেয় এমবাপ্পেকে। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায়, থিও পাস বাড়ানোর মুহূর্তে অফসাইডে ছিলেন এমবাপ্পে। স্প্যানিশ ফুটবলাররা মাঠেই গোলটি বাতিলের জন্য বারবার আবেদন করলেও রেফারি আর সেদিকে কান দেননি। তার ব্যাখ্যা, স্প্যানিশ ডিফেন্ডার এরিক গার্সিয়ার পায়ে বল স্পর্শ করাতেই ভেঙে গেছে অফসাইড ট্র্যাপ।

তবে দেখা গেছে, থিও পাসটি বাড়ানোর মুহূর্তেই এমবাপ্পে অফসাইডে ছিলেন আর ম্যান সিটি থেকে এ মৌসুমেই বার্সেলোনায় যোগ দেয়া এরিক গার্সিয়ার পায়েও লাগেনি বলের স্পর্শ। তবে রেফারি অ্যান্থনি টেলরের ধারণা, বল এরিক গার্সিয়ার পায়ে লাগায় আর অফসাইড হয়নি এবং খেলা চালিয়ে যাওয়াই ছিল সমীচিন।

ম্যাচের শেষে সার্জিও বুসকেটস টুইট করেছে এ নিয়ে। তিনি লিখেন, এমবাপ্পে পরিষ্কারভাবেই অফসাইড ছিল। তবে রেফারি বললেন যে এরিক গার্সিয়ার কারণে এমবাপ্পে অফসাইডে ছিলেন না। তার এই কথার কোনো মানেই আমি খুঁজে পাচ্ছি না।

স্প্যানিশ দৈনিক মার্কা’র রেফারিং বিশেষজ্ঞ আলফনসো পেরেজ বুরুল বুঝতে পারছেন না কেন এটা অফসাইড নয় এবং কেন উয়েফা তাদের সম্প্রচারে কোনো অফসাইড লাইন দেখালো না। সেক্ষেত্রে পরিষ্কারভাবেই প্রকাশ পেতো যে, পাসটি বাড়ানোর মুহূর্তে শেষ ডিফেন্ডারের চেয়ে এগিয়ে ছিলেন এমবাপ্পে।

এম ই/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply