তদন্ত কমিটিকে সহযোগিতা করছেন না ‘শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেয়া’ শিক্ষক

|

ফাইল ছবি।

সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চুল কাটার ঘটনায় তদন্ত কমিটিকে সহযোগিতা করছেন না অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন। সে কারণে এখনও ঘটনাটির প্রতিবেদন জমা দিতে পারেনি তদন্ত কমিটি, জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান ও রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক লায়লা ফেরদৌস হিমেল।

এ বিষয়ে যমুনা নিউজকে তদন্ত কমিটির প্রধান লায়লা ফেরদৌস হিমেল জানান, কাজ এখনও শেষ হয়নি। কিছু সংশোধনীর কাজ চলছে। তবে দ্রুততম সময়ের মধ্যেই প্রতিবেদন জমা দেয়ার চেষ্টা করছি আমরা।

অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন এই তদন্তকার্যে এখনও পর্যন্ত কোনো সহযোগিতা করেননি এবং বারবার চেষ্টা করেও অভিযুক্তের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি, জানান লায়লা ফেরদৌস।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ সেপ্টেম্বর পরীক্ষার হলে ১৪ ছাত্রের মাথার চুল কেটে দেয়ার অভিযোগ ওঠে ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার জেরে একজন শিক্ষার্থী আত্মহত্যার চেষ্টা করলে এ নিয়ে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানার অপসারণ দাবিতে আন্দোলন ও অনশন শুরু করেন। পরে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত করার জন্য লায়লা ফেরদৌস হিমেলকে প্রধান করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। অভিযুক্ত ফারহানা চুল কাটার কথা অস্বীকার করলেও এর প্রমাণস্বরূপ সিসিটিভির কিছু ফুটেজ জনসম্মুখে এসেছে।

এম ই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply