আর্কষণ হারাচ্ছে শুভলং ঝর্ণা

|

কালের বিবর্তনে রাঙ্গামাটির অন্যতম দর্শনীয় স্থান শুভলং ঝর্ণার সৌন্দর্য অনেকটাই ম্রিয়মাণ। এই পর্যটন কেন্দ্রটিতে নেই কোনো আধুনিক সুযোগ সুবিধা, ফলে কমছে পর্যটক। যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এবং সৌন্দর্যবর্ধনে সরকার এবং ইজারাদার, কারও কোনো উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

রাঙামাটি সদর থেকে নদী পথে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দুরে বরকল উপজেলায় অবস্থিত শুভলং ঝর্ণা দেখলেই একসময় মন জুড়িয়ে যেতো। পর্যটক আকৃষ্ট করতে ২০০০ সালে সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য ঝর্ণার এলাকাটিকে শিলারডাক ঝর্ণা কেন্দ্র নাম দিয়ে ইজারা দেয়া হয়। সময়ের ব্যবধানে এখন অনেকটাই বিবর্ণ এই পর্যটন স্পটটি। নেই বসার স্থান, এমনটি নেই টয়লেটও। বৃষ্টি হলে কোথাও দাঁড়ানোর সুযোগ নেই।

শুভলংয়ে আগের তুলনায় পর্যটক অনেক কমেছে বলে স্বীকার করছেন ইজারাদার জয় চাকমা নিজেও। তিনি বলেন, আগের তুলনায় পর্যটক কমেছে অনেক। সরকার এর রক্ষণাবেক্ষণ ও সৌন্দর্যবর্ধন করলে এটি আবার পূর্বে রূপে ফিরে যাবে বলে জানান।

তবে পর্যটকদে আকৃষ্ট করতে সৌন্দর্যবর্ধন পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুয়েল রানা। তিনি বললেন, নান্দনিকতা বর্ধনে সিঁড়িসহ আরও অনেক ক্ষেত্রে আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণের পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

শুধু শুভলং ঝর্ণা নয়, রাঙামাটির অন্যান্য দর্শনীয় স্পটগুলো আরও আকর্ষণীয় না করলে পর্যটক কমবে বলে শঙ্কা এই খাত সংশ্লিষ্টদের।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply