কী বললেন তথ্য ফাঁসে নাম আসা বিশ্বনেতারা?

|

ছবি: সংগৃহীত

প্যান্ডোরা পেপারসে নথিতে নাম এসেছে বেশ কয়েকজন বিশ্বনেতার। চলছে এ নিয়ে আলোচনা সমালোচনা। তবে নিজেদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সরাসরি এড়িয়ে গেছেন অনেকেই। অনেকেই দিয়েছেন দায়সারা বক্তব্য।

বিশ্বের ইতিহাসে অন্যতম বৃহৎ তথ্য ফাঁসের ঘটনায় বেরিয়েছে ১২ মিলিয়নের বেশি নথি। ৩৫ জন সাবেক ও বর্তমান বিশ্বনেতার নাম এসেছে কর ফাঁকির অভিযোগে। সেখানে আছে রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও জর্ডানের বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আল হুসেইনের নাম। কিন্তু দুজনই আলাদাভাবে বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, তারা ভুল কিছুই করেননি।

ফাঁস হওয়া নথিতে দেখা যায়, ১৯৯৯ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে আমেরিকা ও ব্রিটেনে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থ খরচ করেছেন জর্ডানের বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আল হুসেইন। তবে জর্ডানের রয়াল প্যালেস বিবৃতিতে জানিয়েছে, দেশের বাইরে সম্পদ থাকাকে অস্বাভাবিক এবং অন্যায় কোনোটিই বলা যায় না।

পুতিন, পুতিনের পরিবার এবং তার কাছের মানুষদের নামে লুকানো সম্পদের তথ্য ফাঁস হবার পর ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্র পেসকোভ উল্টো প্রশ্ন তুলেছেন এসব ফাঁস হওয়া তথ্যের স্পষ্টতা নিয়ে। তিনি বলেছেন, তথ্যগুলো কী এবং কী নিয়ে তা এখনও পরিষ্কার হয়নি। আমরা সেখানে পুতিনের পরিচিত কারও লুকানো সম্পত্তির বিবরণ পাইনি।

নাম আসা চেক প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী আন্দরেজ বাবিস তার বিরুদ্ধে আসা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, কোনো অবৈধ কাজের সাথেই তার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। আসন্ন নির্বাচনের আগে এসব বানোয়াট তথ্য দিয়ে প্রতিপক্ষ নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে চাচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।

প্যান্ডোরা পেপারসে নাম এসেছে চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিয়েরার নাম। নিজের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। এ বিষয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে তার কার্যালয়ের বিবৃতির মাধ্যমেও।

যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার ও তার স্ত্রী চেরি ব্লেয়ারের নামও এসেছে এই তালিকায়। ফাঁস হওয়া তথ্যে দেখা গেছে, ব্লেয়ার দম্পতি ৩ লাখ ১২ হাজার পাউন্ড কর ফাঁকি দিয়ে লন্ডনে ভবনের মালিকানা নিয়েছিলেন। তবে এ ব্যাপারটিতে অস্বাভাবিক কিছুই ছিল না বলে গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন চেরি ব্লেয়ার।

১৩টি অফশোর কোম্পানির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ এসেছে কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াতা ও তার পরিবারের ৬ সদস্যের বিরুদ্ধে। এছাড়া রাষ্ট্রীয় সম্পদ চুরি ও কুক্ষিগত রাখার অভিযোগও এসেছে সেখানে। তবে উহুরু কেনিয়াতা এই তদন্তে সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

এছাড়া প্যান্ডোরা পেপারসে নাম আসা পাকিস্তানি নাগরিকদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

/এম ই


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply