বাল্যবিবাহকে পরোক্ষভাবে স্বীকৃতি দিলো রাজস্থান, নতুন আইনে বাড়ছে উদ্বেগ

|

ছবি: সংগৃহীত।

বিয়ে সংক্রান্ত নতুন একটি আইন পাস হয়েছে ভারতের রাজস্থান বিধানসভায়। রাজ্যটির ক্ষমতাসীন কংগ্রেস সরকারের ‘রাজস্থান কমপলসারি রেজিস্ট্রেশন ম্যারেজ, ২০২১’ বিল পাস হওয়া নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক বিতর্ক। এ রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি বলছে, আইনটি পাসের মাধ্যমে বাল্যবিবাহকে নিরবে বৈধতা প্রদান করা হলো। খবর এনডিটিভির।

শুক্রবার (১ অক্টোবর) রাজস্থান বিধানসভায় পাস হয়েছে এই আইন। সেখানে বলা হয়েছে, সব ধরনের বিয়েই নথিভুক্ত বা রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। যদি কনের বয়স ১৮ এর নিচে বা বরের বয়স ২১ এর কমও হয়, তবুও তাদের বিয়ের ৩০ দিনের মধ্যে তা নথিভুক্ত করতে হবে পরিবারকে। এর মাধ্যমে ২০০৯ সালের বিবাহ আইনটিতে পরিবর্তন আনা হলো।

এ দিকে, ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জি নিউজ বলছে, এই আইনের মাধ্যমে বাল্যবিয়েকে বৈধতা দেয়ার কথা স্বীকার করেনি কংগ্রেস। তাদের ভাষ্য, বিলটিতে বাল্যবিবাহকে বৈধতা দেয়ার কথা বলা হয়নি। সম্পত্তির অধিকার সংক্রান্ত সমস্যা বা বিধবা ভাতাসহ অন্যান্য সমস্যা সমাধানের জন্য শুধুমাত্র বিয়েগুলো নথিভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনের ভিত্তিতেই এই বিল পাস করানো হয়েছে। যদিও বিজেপির দাবি, এই আইন সম্পূর্ণ ভুল। এই আইনের ৮ নম্বর সেকশন সরাসরি বাল্যবিবাহ সম্পর্কিত বর্তমান আইনের বিরোধিতা করে।

বিরোধী দলের শঙ্কা, এই আইনের মাধ্যমে বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে জনমনে যতটুকু সচেতনতা সৃষ্টি করা সম্ভব হয়েছে, তাও আর থাকবে না। এবারে আশঙ্কাজনক হারে বাল্যবিবাহ বেড়ে যাবে বলেও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

উল্লেখ্য, এই বিল পাস হয়েছে বিধানসভার ‘ধ্বনি ভোট’ বা কণ্ঠ ভোটে। তবে এর জোর বিরোধীতা করেছে বিজেপি। বিলটি পাসের পরই বিধানসভা থেকে বেরিয়ে যান বিজেপির সদস্যরা। এই দিনটিকে কালোদিন হিসেবেও ঘোষণা করা হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে। মানবাধিকার সংস্থাগুলোও এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply