অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু ঘরোয়া উপায়

|

প্রতীকী ছবি

অ্যাসিডিটি সব বয়সের লোকেরই একটি প্রচলিত সমস্যা। এটি হলে পেটে ব্যথা, বমি, গ্যাস, মুখে দুর্গন্ধ ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে।

অ্যাসিডিটি বেশি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খেতে হবে। তবে এর আগে কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে দেখতে পারেন। অ্যাসিডিটি কমানোর কিছু ঘরোয়া উপায় জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবসাইট টপ টেন হোম রেমেডি।

১. পানি

অ্যাসিডিটি হলে প্রথমেই এক গ্লাস পানি পান করে নিন। পানি এসিডকে নিষ্ক্রিয় করে পাকস্থলি থেকে বের করে দেয়।

২. দারুচিনি

দারুচিনি হজমের জন্য ভালো। এটি প্রাকৃতিক অ্যান্টাসিডের মতো কাজ করে এবং পাকস্থলির গ্যাস অপসারণ করে।এক কাপ পানির মধ্যে আধা চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া মেশান। মিশ্রণটিকে সিদ্ধ করুন। এরপর চুলা থেকে নামিয়ে কিছুক্ষণ ঠাণ্ডা হতে দিন। এই দারুচিনির চা দিনে দুই থেকে তিন বার পান করুন। এ ছাড়া আপনার স্যুপ অথবা সালাদে দারুচিনির গুঁড়া দিতে পারেন।  

৩. লবঙ্গ

লবঙ্গ অ্যাসিডিটি কমাতে কাজ করে। দুই থেকে তিনটি লবঙ্গ মুখে দিয়ে চিবাতে থাকুন। এতে যে রস বের হবে সেটি আপনার অ্যাসিডিটি কমাতে সাহায্য করবে।

৪. আদা

আদার মধ্যে থাকা প্রদাহরোধী উপাদান অ্যাসিডিটি কমাতে উপকারী। আদার রস পাকস্থলীর গ্যাসকে নিষ্ক্রিয় করে। অ্যাসিডিটি হলে কয়েক টুকরো আদা চিবান। এক কাপ পানির মধ্যে কয়েক টুকরো আদা নিয়ে সিদ্ধ করতে পারেন। চুলা থেকে নামিয়ে একে ঠাণ্ডা করুন। এরপর পান করুন।  

এছাড়াও আপনি আরও কয়েকটি দিকে খেয়াল রাখলেই অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

  • সঠিক সময়ে খাবার খান, অতিরিক্ত ঝাল-মসলা ও তেলেভাজা খাবার পরিহার করুন।
  • চাহিদামাফিক বিশুদ্ধ পানি পান করুন।
  • সহজপাচ্য, সুষম ও আঁশযুক্ত খাবার খান। খাবার ভালো মতো চিবিয়ে খান।
  • নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করুন ও পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান এবং দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন। 
  • খালি পেটে চা, কফি, কলা, লেবু ও কোমল পানীয় খাবেন না। 
  • ধূমপান, মাদকদ্রব্য ও অ্যালকোহল বর্জন করুন।
  • ঠাণ্ডা দুধ পাকস্থলীর গ্যাস্ট্রিক অ্যাসিডকে নিয়ন্ত্রণ করে ও অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি দেয়। 
  • চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাবেন না। 

সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply