রাতে পর্যাপ্ত না ঘুমানোর ক্ষতিসমূহ

|

ছবি: সংগৃহীত।

পৃথিবীতে মানুষই বোধ হয় একমাত্র প্রাণী যে রাতের ঘুম নষ্ট করে নিজের ক্ষতি নিজেই করে এবং এত ক্ষতি জানার পরও অনেক সময় অকারণে রাত জাগে। রাতে নিয়ম করে পর্যাপ্ত না ঘুমালে শরীরে হয় অপূরণীয় ক্ষতি। নিয়মিত না ঘুমালে শরীরে দীর্ঘমেয়াদী বিরূপ প্রভাব পড়ে।

একজন সুস্থ মানুষের সুস্থ থাকার জন্য দৈনিক ৭ থেকে ৯ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন। বর্তমান বিশ্বের প্রায় এক তৃতীয়াংশ মানুষ পর্যাপ্ত ঘুমায় না।

সম্প্রতি হেলথ লাইন ডট কম রাতে পর্যাপ্ত না ঘুমালে আমাদের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয় সে সম্পর্কে এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আসুন জেনে নেয়া যাক রাতে পর্যাপ্ত না ঘুমালে আমাদের শরীরে যেসব ক্ষতি হয়-

প্রতিদিন ৬ ঘণ্টার নিচে ঘুমালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হবে, ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বাড়বে।

শরীরের প্রতিরোধ কাঠামো যেমন দুর্বল হবে পাশাপাশি প্রদাহ বাড়তে থাকবে। শরীরে যত ব্যাথা বেদনা বা বাতের ব্যাথা এগুলো বাড়তে থাকবে এবং অনেক ধরনের রোগে আপনি আক্রান্ত হবেন যেমন: এজমা, গিটে গিটে ব্যথা।

পর্যাপ্ত ঘুম ব্যাতীত শরীর তার পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করতে পারে না। অর্থাৎ শরীরে বিষাক্ত পদার্থ জমতে থাকে।

বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্মৃতি শক্তি কমতে থাকবে এবং নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ কমতে থাকবে।

এক সপ্তাহের ঘুমের ব্যাঘাতে ডায়াবেটিসের প্রথম ধাপে চলে যেতে পারেন।

আপনার প্রজনন ক্ষমতা কমে যাবে আপনি হবেন নাম পুরুষ। নারী পুরুষ উভয়ের যৌন ক্ষমতা এবং আকাঙ্ক্ষা কমে যাওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।

পর্যাপ্ত ঘুম না হলে আপনার রক্তনালী সংকীর্ণ হয়ে যেতে পারে এবং হৃদরোগে আক্রান্ত হতে পারেন।

বিভিন্ন মানসিক সমস্যার একটা মূল কারন হলো অপর্যাপ্ত ঘুম। ঘুম কম হলে অনেকে মানসিক বিষণ্ণতায় আত্মহত্যার মতো মারাত্মক সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন।

ঘুম কম হলে আপনার অকারণে বার বার ক্ষুদা লাগবে এবং অস্বাস্থ্যকর খাবারের প্রতি আসক্ত হবেন।

ওজন বাড়ার এবং মিষ্টি জাতীয় খাবারের প্রতি আকর্ষণের একটা মুল কারণ হল ঘুমের স্বল্পতা।

মেজাজ থাকবে খিটখিটে, অকারণে মন খারাপ হবে, সব কিছু অসহ্য লাগবে, ধৈর্য্য কমে যাবে, রাগ বেড়ে যাবে, শরীরে হবে জ্বালা পোড়া। কোনো কাজে উৎসাহ পাবেন না এবং নিজেকে অলস মনে হবে। নতুন কোনো কাজ করার উৎসাহ হারিয়ে ফেলবেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply