মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে তুরস্ক

|

ছবি- সংগৃহীত।

যুক্তরাষ্ট্রের জোরালো আপত্তি থাকা স্বত্বেও তাতে পাত্তা না দিয়ে আরও ক্ষেপণাস্ত্র কেনার কথা ভাবছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

সিবিএস নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আমেরিকার নির্মিত প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র কেনার কোনো বিকল্প সুযোগ রাখা হয়নি তুরস্কের জন্য। ১৪০ কোটি মার্কিন ডলার পরিশোধ করা হলেও এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান আমাদেরকে হস্তান্তর করা হয়নি।

রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) এরদোগানের পুরো সাক্ষাৎকারটি সম্প্রচারের আগে তার সংক্ষিপ্ত একটি অংশ প্রকাশ করা হয়েছে। এফ-৩৫ কর্মসূচি থেকে তুরস্ককে বের করে দিয়ে দেশটির প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনা নিয়ে জোরালো আপত্তি জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, এই ব্যবস্থা এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের জন্য বড় হুমকি।

তুরস্ক বলছে, ন্যাটো ব্যবস্থার সাথে সমন্বয় না করেই তুরস্ক স্বাধীনভাবে এস-৪০০ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ব্যবহার করবে। সেটি ন্যাটোর জন্য কোনো ঝুঁকি তৈরি করবে না।

রাশিয়ার প্রভাব মোকাবেলায় ২০১৭ সালের একটি আইনের অধীন ২০২০ সালে তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কোনো মার্কিন মিত্রকে সাজা দিতে এই প্রথম আইনটির ব্যবহার করেছে ওয়াশিংটন।

তুরস্ক আরও এস-৪০০ কিনবে কিনা জানতে চাইলে এরদোগান স্পষ্টভাষায় বলে দেন, অবশ্যই, অবশ্যই। আমরা আরও রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনবো। নিজেদের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে তুরস্ককে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

বৃহস্পতিবার তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি সততার সঙ্গে বলতে পারছি না—তুরস্ক-আমেরিকার সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে। প্রয়োজন হলে আরও ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্রয় করবে তুরস্ক।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply