পাকিস্তান জঙ্গিবাদকে লালন-পালন করে: জাতিসংঘে ইমরান খানকে ভারতীয় নারী

|

ছবি: সংগৃহীত।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সাথে ভারতের বিভিন্ন প্রসঙ্গ টেনে খোঁচার জবাব দিয়ে দেশটিতে তোলপাড় ফেলেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের ফার্স্ট সেক্রেটারি স্নেহা দুবে।

হিন্দুস্থান টাইমসের প্রতিবেদন অনুসারে, শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ইমরান খানের কাশ্মির নিয়ে খোঁচার জবাবে তোপ দাগেন স্নেহা দুবে। ইমরান খানের উদ্দেশে দেয়া বক্তব্যের পর তিনি দেশটির গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসায় ভাসছেন।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ভার্চুয়াল মাধ্যমে দেয়া বক্তব্যে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বিজেপি শাসিত ভারতকে দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিম জনগণের জন্য ‘ভীতিপ্রদ’ স্থান হিসেবে উল্লেখ করেন। ইমরান খান বলেন, ‘বর্তমানে ইসলামভীতির সবচেয়ে ব্যাপক ও নিকৃষ্ট রূপটি আমরা ভারতে দেখতে পাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, ভারতে বর্তমান ক্ষমতাসীন বিজেপি-আরএসএস যেভাবে বিদ্বেষপূর্ণ হিন্দুত্ববাদ ছড়াচ্ছে, তা দেশটিতে বসবাসরত ২০ কোটি মুসলিম জনগোষ্ঠীকে ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলছে এবং দেশটির অন্যান্য ধর্মাবলম্বী জনগণের মধ্যে মুসলিমদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও সহিংসতা উস্কে দিচ্ছে।

ইমরান খান আরও অভিযোগ করেন, সংবিধান সংশোধন করে কাশ্মিরের স্বায়ত্বশাসন বাতিলের মাধ্যমে ভারতের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এই রাজ্যটির জনগণের মৌলিক অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে।

জাতিসংঘে পাক প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে স্নেহা বলেন, পাকিস্তান হলো এমন একটি দেশ যারা নিজেরা আগুন লাগায় এবং তারপর আবার নিজেরাই দমকলকর্মী হয়ে সেই আগুন নেভাতে আসে।

এই দেশটি বরাবরই জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় এবং লালন-পালন করে আসছে শুধুমাত্র একটি আশায়- জঙ্গি ও উগ্রপন্থিরা যেন প্রতিবেশী দেশসমূহে নাশকতা চালানোর মাধ্যমে তাদের ক্ষতিগ্রস্ত করে।

পাকিস্তান তার নিজের দেশের সংখ্যালঘুদের সাথে কী পরিমাণ নিপীড়নমূলক আচরণ করে, তা সবাই জানে। তাদের নিপীড়নের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেই ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply