কাঁটাতারে বন্দি চরবাসী

|

লালমনিরহাটে নিজেদের জমি দখলে নিতে দীর্ঘদিনের চলার পথ বন্ধ করে দিয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ইন্ট্রাকো সোলার পাওয়ার লিমিটেড। এতে বিপাকে পড়েছেন স্থানীয়রা। দীর্ঘপথ ঘুরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে হচ্ছে চরবাসীকে। উৎপাদিত পণ্য আর রোগী আনা-নেয়ায়ও মারাত্মক ভোগান্তি হচ্ছে তাদের। রাস্তাটি খুলে দিতে সরকারি বিভিন্ন দফতর আর জনপ্রতিনিধিদের জানালেও নির্বিকার প্রশাসন।

এতদিন যে রাস্তা স্কুলে যাতায়াতের জন্য ব্যবহার করেছে লালমনিরহাটের কালিগঞ্জ উপজেলার শৌলমারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা সে পথ এখন কাঁটাতারে বন্ধ। এতে চরম ভোগান্তিতে চরাঞ্চলের মানুষ। আড়াই কিলোমিটার ঘুরে চলাচল করতে হচ্ছে তাদের। সাধারণ মানুষ জানালেন, আধাঘণ্টার রাস্তা যেতে এখন আড়াই ঘণ্টা লাগছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে জমি কেনা প্রতিষ্ঠান ইন্ট্রাকো সোলার পাওয়ার এই প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। একসময় উপজেলা সদরের সাথে চরবাসীর যোগাযোগের মূল রাস্তা ছিল এটি কিন্তু সোলার বসানোর কাজে রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। মানুষ বলছেন, কাঁটাতারের পাশ দিয়েও মানুষ যাতায়াত করতো কেউ কেউ। তবে এখন সেটিও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

রাস্তাটি খুলে দিতে সরকারি বিভিন্ন দপ্তর আর জনপ্রতিনিধিকে জানানো হলেও প্রতিকার মেলেনি। উল্টো কাটাতারে ফাঁক গলে যাতায়াত বন্ধ করায় তৎপর প্রতিষ্ঠানটি।

ইন্ট্রাকো সোলার পাওয়ার লিমিটেডের একজন কর্মচারী জানালেন, প্রতিষ্ঠানের সিদ্ধান্ত, তাই বন্ধ রাখা হয়েছে পথটি। কর্মীদের এতে কিছু করার নেই বলেও জানালেন তিনি।

এ বিষয়ে ইন্ট্রাকোর দায়িত্বরত কোনো কর্মকর্তা কথা বলতে রাজি হননি।

তবে স্কুলে যাতায়াতের বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করছে উপজেলা শিক্ষা অফিস। স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষকসহ সাধারণ মানুষের চলাচলের ওই রাস্তাটি খুলে দিতে সংশ্লিষ্টদরে কাছে অনুরোধ জানান কালীগঞ্জ উপজেলার শিক্ষা অফিসার জাকির হোসেন সরকার।

স্কুল ছাড়াও এই রাস্তা দিয়ে অসুস্থ রোগীর যাতায়াত আর উৎপাদিত ফসল বাজারে আনা নেয়া করতো চরবাসী।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply