বাবা-মা ক্ষমা করো, গুড বাই; আরও এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

|

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন জামিল।

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ছাত্রাবাস থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃত শিক্ষার্থীর নাম তাহমিদুর রহমান জামিল (২২)। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার শাহীবাগ এলাকার বজলার রহমানের ছেলে। পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন জামিল।

সহপাঠিদের বরাত দিয়ে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, পারিবারিক বিষয় নিয়ে কিছুদিন ধরে মানসিক অস্থিরতায় ভুগছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর ছাত্রাবাসে নিজের কক্ষে ফ্যানের হুকের সাথে ব্যাগের বেল্ট গলায় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। পরে সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মৃতদেহ দেখে থানায় খবর দেন তার সহপাঠীরা। পরে পুলিশ গিয়ে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

ওসি আমিনুল বলেন, তার কক্ষ থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করা হয়েছে। সেটা পড়ে জানা যায়, মানসিক যন্ত্রণায় ভুগছিলেন তিনি। হতাশা পেয়ে বসেছে তাকে। কোনো কিছুতে স্বস্তি পাচ্ছিলেন না। ওই সুইসাইড নোটে লেখা ছিল, বাবা-মা ক্ষমা করো। গুড বাই।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছেন। তারপরও ময়না তদন্ত করা হবে।
পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও অভিযোগ পাওয়া যায়নি বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply