পেটের মেদ কমানোর কিছু সহজ উপায়

|

ওজন কমাতে গিয়ে প্রত্যেকেই সমস্যায় পড়েন পেটের চারপাশের চর্বি কমাতে। এর কারণটাও স্পষ্ট, ভুড়ি কমানো অতো সহজ নয়, যতোটা আমরা মুখে বলে ফেলি। তবে, অসম্ভবও নয়। ভুড়ি কমাতে কয়েকটি নিয়ম মানলে আপনিও হতে পারেন ছিপছিপে কোমরের অধিকারি।

চলুন জেনে নেওয়া যাক, সে উপায়গুলো কী কী-

সময় নিয়ে খান

এমন কথা শুনে আকাশ থেকে পড়ার কিছু নেই। বৈজ্ঞানিকভাবে এটা প্রমাণিত যে, যারা ধীরে ধীরে সময় নিয়ে চিবিয়ে চিবিয়ে খায়, তাদের হজমটা বেশ তাড়াতাড়ি হয়। ব্যস্ততা নিয়ে, কথা বলতে বলতে কিংবা ফোনে ফেসবুক দেখতে দেখতে খাবেন না। এতে মস্তিষ্ক ঠিকঠাক বার্তা পায় না, কখন আপনার পেট ভরে গিয়েছে। এর ফলে অধিকাংশ সময়েই আমরা বেশি খেয়ে ফেলি।

মনকে শান্ত রাখুন

মন শান্ত না থাকলে, উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকলে শরীরের মেটাবলিজম হার কমে যায়। ঘুম ঠিক করে হয়না। এমনকি খাবারও হজম হতে দেরি হয়। তাই যতটা সম্ভব মনকে শান্ত রাখার চেষ্টা করুন।

সোজা হয়ে বসুন

কাজের সময় বা অন্য কোনো সময়ে আমরা বেশির ভাগ সময় কুঁজো হয়ে বসে থাকি। দীর্ঘ সময় এভাবে বসতে বসতে পেটের পেশিগুলো ঝুলে যায়। তাই খেয়াল রাখবেন, বসার সময় মেরুদন্ড যেনো সোজা থাকে।

পেটের ব্যায়াম

অনেকে প্রতিদিন এক্সারসাইজ কারার পরেও পেটের মেদ কমে না। তার কারণ যেকোনো ব্যায়াম করার সময়ে পেটের পেশিগুলো টানটান রেখে ভেতরের দিকে টেনে ব্যায়াম করতে হবে। না হলে পেটের ওপর চাপ পড়বে না।

যোগব্যায়ম

পেটের মেদ ঝরাতে যোগব্যায়াম উপকারি। নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে পেটের মেদ কমানো সহজ হয়। এক্ষেত্রে ধনুরাসন, ভুজাঙ্গাসন, উস্ত্রাসনের মতো বেশ কিছু আসন আপনাকে পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

প্রচুর শাক সবজি খাওয়া

এমন খাবার খেতে হবে যা সহজে হজম হয়ে যায়। শাক-সবজি-ফলে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। পেট কমানোর জন্য এগুলো আদর্শ খাবার। তেল-মশলা কম খেলেও ডায়েটে গুড ফ্যাট রাখতে হবে। না হলে শরীরে ফ্যাট বার্ন হবে না। বাদাম, নাট-বাটারের মতো খাবারে গুড ফ্যাট থাকে। তাই এগুলো প্রতিদিনের ডায়েটে অবশ্যই রাখবেন। সহজ করে বললে, ফাইবার ও গুড ফ্যাট আছে এমন খাবার খাবেন।

জিরা পানি

পেটের মেদ কমানোর জন্য একটি পানীয় হলো ‍জিরা পানি। জিরা পানি শুধুমাত্র হজমেই সহায়তা করেনা পেটের মেদ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

পানি

ওজন কমাতে পানির কোনো বিকল্প নেই। পানি একদিকে শরীর হাইড্রেট করে সেই সাথে অস্বাস্থ্যকর খাবারের প্রতি আগ্রহ দূর করে। খাওয়ার আগে পানি খেলে খাবারও কম খাওয়া যায়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply