নকল বিদেশি মদের কারখানার সন্ধান! ৩ ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ৯

|

ফরিদপুর প্রতিনিধি:

ফরিদপুরে বিদেশি মদ তৈরির নকল একটি কারখানা শনাক্ত করা হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগের ফরিদপুর শহর শাখার তিন নেতাসহ নয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার রাত পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন জায়গায় গোয়েন্দা পুলিশের বিভিন্ন দল অভিযান করে ওই ব্যক্তিদের গ্রেফতার করে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ এসব তথ্য জানায় পুলিশ। অভিযানে আটককৃতদের কাছ থেকে ও নকল ওই কারখানা থেকে ৫২টি মদের বোতল, ১০ লিটার স্পিরিট, বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যালসহ মদ তৈরির বিভিন্ন উপাদান জব্দ করা হয়।

গ্রেফতার হওয়া তিন ছাত্রলীগ নেতা হলেন, ফরিদপুর শহরের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি শহরের ভাটিলীপুর মহল্লার বাসিন্দা সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শুভ সরকার (২২), ১১ নম্বর ওয়ার্ডের সহ-সভাপতি শহরের দক্ষিণ আলীপুর মহল্লার বাসিন্দা এবছর উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ মো. আশিক ফকির (২১) ও ওই ওয়ার্ডের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একই মহল্লার বাসিন্দা সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের ডিগ্রি শ্রেণির শিক্ষার্থী অনিক হোসেন (২৩)। গত ১১ এপ্রিল জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি তানজিদ রশিদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদ স্বাক্ষরিত ফরিদপুর শহর ছাত্রলীগের ১১ ও ১৮ নম্বর তালিকা থেকে ওই তিন ছাত্রলীগ নেতার পরিচয় সনাক্ত করা হয়।

জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি তানজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ান বলেন, ওই তিন ছাত্রনেতার মাদকের সাথে জড়িত মর্মে গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়ার পর তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

গ্রেফতার হওয়া অপর ব্যক্তিরা হলেন, শহরের রঘুনন্দনপুর এলাকার মো. তানভীর (১৯), একই মহল্লার মহিউদ্দিন ওরফে জুয়েল (৩২), শফিকুল ইসলাম (৩৪), শহরের দক্ষিণ আলীপুর মহল্লার ওবায়দুর শেখ (২১)। এ অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া বাকি দুইজন কিশোর।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার রাত সোয়া ১০টার দিকে আলীপুর সাজেদা কবির উদ্দিন প্রাথমিক বিদ্যালয় এর সামনে থেকে ১৭ বছরের দুই কিশোরকে তিন বোতল বিদেশি মদ সহ গ্রেফতার করে। একই সময় ওই কিশোরদের আটক করে মারপিট ও চাঁদা দাবি করায় মো. অনিক হোসেন, মো. আশিক ফকির ও ওবায়দুর শেখকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্য মতে শুভ সরকার, মো. তানভির, মহিউদ্দিন ও শরিফুলকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও জানানো হয়, মহিউদ্দিন শেখ রঘুনন্দনপুর এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে নকল বিদেশি মদ উৎপাদন করেন। এই নকল মদ বাজারজাত করে আসছিলেন। এছাড়াও গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের ডোপ টেস্ট করে অনিক, আশিক, ওবায়দুর, শুভ ও তানভিরের প্রতিবেদন পজেটিভ পাওয়া গেছে।

গ্রেফতার হওয়া নয়জনের মধ্যে মহিউদ্দিন, শরিফুল ও তানভীরের পাঁচদিন করে রিমান্ড চেয়ে এবং বাকিদের জেল হাজতে পাঠানোর আবেদন জানিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলার এক নম্বর আমলি আদলতে সোপর্দ করা হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply