অবশেষে বিমানবন্দরে শুরু হলো করোনা পরীক্ষা

|

শাহজালাল বিমানবন্দরে শ্রু হয়েছে পরীক্ষামূলক করোনা টেস্ট।

অবশেষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শুরু হলো করোনা পরীক্ষা। অস্থায়ীভাবে স্থাপিত একটি পরীক্ষাগারে আজ বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) পরীক্ষামূলকভাবে শুরু হয়েছে করোনার আরটি-পিসিআর টেস্ট। এছাড়াও বিমানবন্দরে আরও ১২টি আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু করেছে ৬টি অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান।

বুধবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে ছেড়ে যায় এমিরেটসের একটি ফ্লাইট। যাত্রা শুরুর ছয় ঘণ্টা আগে ৪৬ জন যাত্রীর করোনা পরীক্ষা করা হয়। মোট যাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫০। কিন্তু ৪ জন যাত্রী সময়মতো বিমানবন্দরে হাজির হতে না পারায় উপস্থিত ৪৬ জন যাত্রীর করোনা পরীক্ষা করা হয়।

আরটি-পিসিআর টেস্টের পর আর এয়ারপোর্ট ছেড়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল না কারও। আরব আমিরাতে ফ্লাইটটি পৌঁছানোর পর সেখানেও আবার করা হবে করোনা পরীক্ষা। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পরিচালিত করোনা পরীক্ষার ফল যাচাই করা হবে সেখানে।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল আসায় এই যাত্রীদের বোর্ডিং দেয়া হয়। এর আগে আজ বিকেলে বিমানবন্দরের টার্মিনালের দোতলায় স্বাস্থ্য বিভাগের সামনে সংগ্রহ করা হয় ৪৬ যাত্রীর নমুনা। এরপর পার্কিং জোনের মোবাইল পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হয় এসব নমুনা।

করোনা মহামারির এতদিন পেরিয়ে গেলেও দেশের তিনটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা ছিল না। গেল আগস্টে সংযুক্ত আরব আমিরাত সে দেশে যেতে যাত্রার ছয় ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে করোনার আরটি-পিসিআর পরীক্ষার শর্ত আরোপ করে। এতে দীর্ঘদিন ধরে কর্মস্থলে যেতে পারছিলেন না প্রবাসীরা। কারও কারও ভিসার মেয়াদও শেষ হয়ে যায়। দেশের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরগুলোতে দ্রুত করোনার আরটি-পিসিআর পরীক্ষাগার স্থাপনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলেন প্রবাসীরা। ১৪ সেপ্টেম্বর এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের নিচে প্রবাসীরা প্রতিবাদও করেন।

সম্প্রতি দ্রুততম সময়ে বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। সেটি দ্রুততম সময়ে না হওয়ায় সংসদে সমালোচনার শিকার হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি তখন এ দায়িত্ব প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বলে উল্লেখ করে। ১৫ সেপ্টেম্বর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার আরটি-পিসিআর পরীক্ষাগার বসাতে সাত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচন করে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে এর মধ্যে ছয়টি প্রতিষ্ঠান স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) জমা দেয়।

/এম ই


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply