পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

|

ময়মনসিংহ ব্যুরো:

ময়মনসিংহে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাদ্দাম হোসেন নামের ওই কনস্টেবল বর্তমানে ময়মনসিংহ পুলিশ লাইনে কর্মরত। তার গ্রামের বাড়ি গৌরীপুর উপজেলার নাজিরপুর গ্রামে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণের অভিযোগে মামলাটি করেন এক যুবতী। এ ঘটনায় বাদীর জবানবন্দী শেষে ময়মনসিংহের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দ্রুত তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, প্রতিবেশী হওয়ার সুবাদে সাদ্দাম হোসেন দীর্ঘদিন যাবত ওই যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২১ মে জোরপূর্বক যুবতীকে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ভয়ভীতি দেখিয়ে গত ২জুলাই আবারও তাকে ধর্ষণ করে। এদিকে ওই যুবতী বারবার বিয়ের কথা বললে সাদ্দাম হোসেন তা এড়িয়ে যায়।

ওই পুলিশ কনস্টেবল বিয়ে নিয়ে টালবাহানা করায় ওই যুবতী তার পরিবারকে সবকিছু খুলে বলে এবং পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয় এবং আদালতে মামলা দায়ের করেন।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. সাঈদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বাদীর জবানবন্দী গ্রহণ করে মামলাটি দ্রুত তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য পিবিআইকে আদেশ দিয়েছেন আদালত।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর আইনজীবী মতিউর রহমান জানান, আসামি পুলিশ কনস্টেবল সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে প্রতারণাপূর্বক ও বিয়ের আশ্বাসে বারবার ধর্ষণের অভিযোগে জবানবন্দি গ্রহণ করে আদালত পিবিআইকে প্রতিবেদন পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। আমরা এ ঘটনার ন্যায়বিচার আশা করছি।

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান জানান, অভিযুক্ত কনস্টেবলের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বর্তমানে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মামলাটি ব্যক্তিগত সম্পর্কের আলোকে হলেও যেহেতু পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি জড়িত তাই সাদ্দাম কোনো ছাড় পাবে না।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply