মাদরাসা শিক্ষার্থী বলাৎকারের ঘটনায় অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষক গ্রেফতার

|

ছবি: প্রতীকী

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি:

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ৯ বছরের এক মাদরাসা ছাত্রকে বলাৎকারের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ওই মাদরাসার অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তবে ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত শিক্ষক রমজান আলী। ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা ও অভিযুক্ত শিক্ষককে পালাতে সহযোগিতা করায় অধ্যক্ষসহ ওই তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার চান্দহুর ইউনিয়নের আলীনগর-ওয়াইজনগর মুহাম্মদিয়া মাদরাসা ও এতিম খানার অধ্যক্ষ মুফতি সাইফুল ইসলাম, শিক্ষক মুফতি আব্দুল আউয়াল ও ক্বারি সাইফুল ইসলাম।

ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা জানান, মাদরাসার ওই শিক্ষার্থীকে (৯) প্রায়ই যৌন হেনস্থা করতো শিক্ষক মো. রমজান আলী। গত ১১ সেপ্টেম্বর মাদরাসার ভেতরে আবারও তাকে বলাৎকার করা হয়। এ ঘটনা ফাঁস করে দেয় শিশুটি।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয়ভাবে মীমাংসার মাধ্যমে ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে একটি মহল।ঘটনার পর পালিয়ে গেছেন রমজান আলী। তার গ্রামের বাড়ি পাবনার ভেড়ামারা উপজেলায়। বিষয়টি জানার পর মঙ্গলবার রাতে (২১ সেপ্টেম্বর) ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হলে এর সত্যতা পাওয়া যায়। রাতেই অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়। তারা অভিযুক্ত শিক্ষক রমজানকে পালাতে সহযোগিতা করেছেন। এ ঘটনায় শিশুটির দাদি বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতার শিক্ষকদের আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply