চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগে বিভক্তি; একদল চায় হাসপাতাল, আরেকদল চায় না

|

সিআরবি এলাকায় প্রকৃতি পরিবেশ ধ্বংস করে হাসপাতাল নির্মাণ ইস্যুতে চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগে বিভক্তি চরমে।

সিআরবি এলাকায় প্রকৃতি পরিবেশ ধ্বংস করে হাসপাতাল নির্মাণ ইস্যুতে চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগে বিভক্তি চরমে। মহানগর ও জেলার শীর্ষ নেতাদের এক গ্রুপ হাসপাতালের পক্ষে, আরেক গ্রুপ বিপক্ষে। দল ও অঙ্গসংগঠনের কর্মীরাও পরস্পরবিরোধী অবস্থানে। এ ইস্যুতে চলছে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য।

সিআরবির প্রকৃতি, পরিবেশ ধ্বংস করে হাসপাতাল নির্মাণের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত ‘নাগরিক সমাজ’ এর আহ্বায়ক হলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলির সদস্য ড. অনুপম সেন, আর সদস্য সচিব ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল হলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। আন্দোলনে প্রত্যক্ষভাবে অংশ নিচ্ছেন তারাসহ সরকারি দল এবং অঙ্গসংগঠনের আরও অনেক নেতা।

তবে সব ঠিকঠাক চললেও বিবাদ শুরু কয়েকদিন আগে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সভার পর। সিআরবিতে হাসপাতাল বিরোধী নেতাদের দলীয় পদ ছেড়ে আন্দোলন করার পরামর্শ দেন দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। তিনি এবং সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন দুজনেই হাসপাতাল নির্মাণের পক্ষে। যদিও নানামুখী সমালোচনার মুখে তারা এ নিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে নারাজ।

অন্যদিকে নির্মাণের বিপক্ষে অবস্থান নেয়া আওয়ামী লীগ নেতাদের ব্যাখ্যা ভিন্ন। তারা পরিবেশ ধ্বংস করে হাসপাতাল চান না।

সিআরবিতে হাসপাতাল ইস্যুতে মহানগরের মতো জেলা আওয়ামী লীগ নেতারাও স্পষ্টত দুভাগে বিভক্ত। এছাড়াও বিভেদের মাত্রা অনুমান করা যাবে, যখন দেখা যাবে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাসপাতালের পক্ষে, আর সাধারণ সম্পাদক বিপক্ষে।

আগামী ডিসেম্বরে চট্টগ্রাম মহানগর এবং দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য সম্মেলনের আগে শীর্ষ নেতাদের এ বিরোধ জন্ম দিয়েছে নতুন আলোচনার।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply