বরিশালে বাস চাপায় ৩ বন্ধু নিহত

|

ছবি: সংগৃহীত


বরিশাল ব্যুরো:

বরিশালে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী ৩ কিশোর নিহত হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বরিশাল-পটুয়াখালী সড়কের শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর পশ্চিম প্রান্তে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন বরিশালের বাকেরগঞ্জ পৌরসভার বাসিন্দা সুমন হাওলাদারের ছেলে সিয়াম হাওলাদার(১৫), জয়দেব দাসের ছেলে চয়ন দাস(১৬) ও বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রি ইউনিয়নের নজরুল ইসলামের ছেলে রাব্বী ইসলাম(১৬)। এরা সবাই উপজেলার জীবন সিংহ ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র।

বরিশাল মহানগর পুলিশের বন্দর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, একসাথে ৬টি মোটরসাইকেল বরিশাল নগরী থেকে বাকেরগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলো। কীর্তনখোলা নদীর উপর অবস্থিত শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতু অতিক্রমকালে একটি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা কবলিত হয়। বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় মোটরসাইকেলে থাকা ৩জনের মধ্যে ২ জন। গুরুতর অবস্থায় শের-ই বাংলা মেডিকেলে ভর্তির কিছুক্ষন পর রাব্বী নামে অপর কিশোরেরও মৃত্যু হয়। মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়া রাতুল-রোহান নামের বাসটি আটক করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আহমেদ ফাহাদ রাকা নামে এক ব্যক্তি জানান, সেতু থেকে নামার সময় সামনের বাসটিকে বেপরোয়া গতিতে অতিক্রম করছিলো মোটরসাইকেলটি। এসময় বিপরীত দিক থেকে আরো একটি বাস চলে আসলে  নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে মোটরসাইকেল চালক। অতিক্রম করতে যাওয়া বাসের চাকায় পিষ্ট হয় মোটরসাইকেলটি।

মোটরসাইকেলের বহরে থাকা নিহতের বন্ধু রাকিব জানান, তারা সবাই একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র। ৬টি মোটরসাইকেলে ৩জন করে মোট ১৮জন বন্ধু বাকেরগঞ্জ থেকে বরিশাল নগরীতে ঘুরতে এসেছিলেন। সন্ধ্যায় বাকেরগঞ্জে ফেরার পথে পিছন থেকে একটি বাস সিয়াম, রাব্বি ও চয়নকে বহনকারী মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply