পানির হিস্যা আদায়সহ অন্যান্য দাবিতে লংমার্চের ঘোষণা দিয়েছে ‘তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও’

|

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর:

তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা এবং বিজ্ঞানসম্মতভাবে মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে নদীর ভাঙন প্রতিরোধ এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও কৃষি বাঁচানোসহ ৬ দফা দাবিতে আগামী ১৫ নভেম্বর লংমার্চ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুর মহানগরীর লালকুঠি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সভা শেষে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন সংগঠনটির সভাপতি অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম হক্কানী। প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সাফিউর রহমান, স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কানু, যমুনা টেলিভিশনের স্টাফ করেসপন্ডেন্ট সরকার মাজহারুল মান্নানসহ তিস্তা বিধৌত ৫ জেলার তিস্তাপাড়ের প্রতিনিধিরা ।

সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী প্রতিনিধিরা তিস্তার বন্যা ও ভাঙনের বিবর্ণ চিত্র এবং পরামর্শ তুলে ধরেন। সভা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে লংমার্চের কমর্সূচি ঘোষণা করেন সভাপতি অধ্যক্ষ হক্কানী। তিনি বলেন, ওইদিন তিস্তার উৎসমূল নীলফামারীর ডিমলার ছাতনাইযে ডান তীর থেকে এবং মোহনা গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের বামতীর থেকে পৃথকভাবে লংমার্চ শুরু হবে। পরে বিকেল তিনটায় কাউনিয়ার তিস্তা ব্রিজ সংলগ্ন চরে মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে রংপুর অঞ্চলের ৫ মন্ত্রী এবং ২২ সংসদ সদস্যকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিস্তাপাড়ারের প্রতিটি ওয়ার্ড কমিটিকে আগামী দেড়মাস জনসংযোগ করার সিদ্ধান্ত হয়।

এরপরেও দাবি বাস্তবায়ন না হলে কঠোর আন্দোলনের যাওয়ার ঘোষণা দেয়া হবে বলেও সভাপতি হুঁশিয়ারি দেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply