দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য খোলামেলা পোশাক পরা অপরাধ নয়: উরফি জাভেদ

|

ছবি: সংগৃহীত।

কখনও বিমানবন্দরে গোলাপি অন্তর্বাস দেখানো জিনসের পোশাক, কখনও গণেশ ঠাকুরের সামনে খোলামেলা কুর্তা, কখনও আবার জাভেদ আখতারের নাতনি মনে করে ঠাট্টা। ‘বিগ বস ওটিটি’-তে যোগদান করার পর থেকে শিরোনামে যেন স্থায়ী জায়গা করে নিয়েছেন ছোটপর্দার অভিনেত্রী উরফি জাভেদ। খবর আনন্দবাজার।

সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে উরফি বললেন, ঠাকুরের সামনে আমি কুর্তা পরে গিয়েছিলাম। ছোট স্কার্ট বা বিকিনি তো পরিনি! অথবা ঠাকুরের সামনে নাচ করিনি আমি। সাধারণ কুর্তা পরার জন্যেও লোকে কম কথা শোনাচ্ছে না। আমি বুঝে গিয়েছি, যা-ই করি না কেন, মানুষ আমাকে অপমান করবেই।

রক্ষণশীল মুসলিম পরিবারের সন্তান বলে বহু বছর নিজের পছন্দমতো পোশাক পরতে পারেননি। উরফির কথায়, ‘‘জিনস পরায় নিষেধাজ্ঞা ছিল। বুক ঢাকতে হতো ওড়নায়। বাধা পেতে পেতে আমি আজ এই জায়গায় পৌঁছেছি। এখন পোশাকের বিষয়ে কারও বারণ মানতে রাজি নই আমি।

তিনি ইসলাম ধর্মাবলম্বী বলে এই কটাক্ষের পরিমাণ আরও বেড়ে যায় বলে ধারণা উরফির। তিনি জানালেন, মুম্বাইয়ে বাড়ি খোঁজার ক্ষেত্রেও তাকে অপমান সহ্য করতে হয়েছে। মুসলিম বলে নাকি বাড়িওয়ালারা ভাড়া দিতে চাইতেন না।

উরফি আরও বলেন, বিমানবন্দরে যে পোশাক আমি পরেছিলাম, তা সাধারণ একটি স্পোর্টস ব্রা। তার উপরে জিনসের জ্যাকেট। কিন্তু সেই পোশাকের ছবি প্রকাশ্যে আসার পর এমন কথাবার্তা বলা হতে থাকল, যেন আমি কাউকে খুন করেছি।

উরফি মনে করেন, দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য খোলামেলা পোশাক পরা কোনও অপরাধ নয়। সমস্ত অভিনেতা অভিনেত্রীই মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চান, কিন্তু স্বীকার করেন না, এমনই মত তার। কিন্তু তা বলে পোশাক নিয়ে কটাক্ষকে সমর্থন করবেন না বলেও জানালেন তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply