সংসদে তোপের মুখে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

|

জাতীয় সংসদে স্বাস্থ্যব্যবস্থা নিয়ে কড়া সমালোচনার শিকার হয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক। সংসদ সদস্যরা স্বাস্থ্যখাতে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন। করোনা চিকিৎসা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তারা।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সংসদে মেডিক্যাল কলেজেস গভর্নিং বডিজ রিপিল বিল-২০২১’র বাছাই কমিটিতে পাঠানো ও বিলটির ওপর সংশোধনী প্রস্তাবের ওপর আলোচনাকালে এসব সমালোচনা হয়।

তবে জাহিদ মালেক দাবি করেন, সব সমালোচনাকে ইতিবাচক হিসেবে নেন তিনি। বলেন, আমি সমালোচনা পছন্দ করি। কারণ, এটি আমাকে শক্তিশালী করে। এই সমালোচনা অবশ্যই সঠিক হতে হবে।

বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, মানুষ কোন বিষয় নিয়ে সাফার করছে আর আমরা আলোচনা করছি কী? অদ্ভুত লাগে। করোনাকালে অর্থনৈতিকভাবে কত পরিবার পঙ্গু হয়ে গেছে সেই খবর কি আমাদের কাছে আছে? জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক বলেন, ডাক্তারদের প্রাইভেট প্র্যাকটিসটা আপনারা দয়া করে বন্ধ করার চেষ্টা করেন। জনগণের পয়সা দিয়ে তাদের বেতন দেবেন, তারা প্রাইভেট প্র্যাকটিস করবেন; এটা আমরা করতে পারি না। বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ বলেন, দেশের পঞ্চাশ বছর অতিক্রম করেছি আমরা। তারপরও বর্তমানে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার বেহাল দশা।

জবাবে জাহিদ মালেক জানান, করোনা চিকিৎসায় সফল সরকার। বেসরকারি হাসপাতালগুলো করোনায় সেবা দিয়েছে। সেখানকার চিকিৎসা ফি নির্ধারণে আমরা বৈঠক করছি। আশা করি এটার সমাধান হবে।

এছাড়াও তিনি বলেন, প্রবাসীদের জন্য বিমান বন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দায়িত্ব প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের। তিনি আশাব্যক্ত করেন যে, আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপন হবে।

এসময় মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট নিয়োগ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিয়ে আলোচনা করেন সংসদ সদস্যরা। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার।

অধিবেশনে মেডিক্যাল কলেজেস গভর্নিং বডিজ রিপিল বিল ২০২১, মেডিক্যাল ডিগ্রিজ রিপিল বিল ২০২১, ও বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইন্সটিটিউট বিল ২০২১ বিল পাশ করা হয়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply