ধূমপায়ীদের জন্য দুধ বা দুগ্ধজাতীয় খাবার ক্ষতিকর

|

ছবি: সংগৃহীত

‘ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর’ বা ‘ধূমপান ক্যানসারের কারণ’ এসব বাণী জেনেও যাদের সিগারেট ছাড়া দিন চলে না, তাদের জন্য ফুসফুসকে সুস্থ রাখা একটি চ্যালেঞ্জ। তবে এমন কিছু ফল বা পদ্ধতি আছে যার মাধ্যমে ধূমপানের ফলে ফুসফুসে জমে যাওয়া ক্ষতিকর পদার্থ নিকোটিন দূর করা যায়।

কীভাবে ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাব কাটাবেন তা জানার আগে, জানা দরকার, কোন খাবার খেলে ফুসফুস পরিস্কারের পদ্ধতি বাঁধাগ্রস্ত হয়। এই তালিকায় প্রথমেই আছে দুধ বা দুগ্ধজাতীয় পদার্থ, এর মধ্যে পড়ে দুধ চাও। তাই ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল না হলে দুগ্ধজাত পদার্থ খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ধূমপান ছাড়াও ফুসফুসে দূষিত পদার্থ জমে। তার অন্যতম কারণ বায়ুদূষণ। ফুসফুসে জমা দূষিত পদার্থ ভবিষ্যতে শ্বাসকষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমনকি ক্যানসারের মতো অসুখের আশঙ্কাও অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয় এই সব দূষিত বস্তু।

কী করে ফুসফুসকে দূষণ মুক্ত করবেন? এর সহজ রাস্তা রয়েছে বাড়িতেই।

• আনারস: ফুসফুসে জমা নিকোটিন বা অন্য দূষিত পদার্থ সাফ করতে পারে আনারস। নিয়মিত এই ফল বা তার রস খেলে ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল হয়।

• গ্রিন টি: এই চায়ে বিপুল পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। গোটা শরীরের দূষিত পদার্থ সাফ করতে এর বিকল্প নেই। ফুসফুসে জমা ক্ষতিকারক পদার্থও সহজে সাফ করতে পারে এটি।

• আদা: ঠান্ডা লাগলে অনেকেই আদা খান। আদা গোটা শ্বাসযন্ত্রেরই উপকার করতে পারে। সারা দিন মাঝে মধ্যে আদা চিবিয়ে খেলে ফুসফুসে জমা দূষিত পদার্থ সাফ হয়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply