ব্যাটেল অফ মাইন্ডসের ১৮তম আসরের চ্যাম্পিয়ন আইবিএ’র টিম ফ্যান ক্লাব

|

বিজয়ী টিম ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা।

দেশের অন্যতম মেধাভিত্তিক প্রতিযোগিতা ব্যাটেল অফ মাইন্ডস এর ১৮তম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইন্সটিটিউট অফ বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম ফ্যান ক্লাব’।

মাসব্যাপী চলমান কেন্দ্রীয় চ্যালেঞ্জ রাউন্ডের পর গতকাল রোববার (২৯ আগস্ট) ১৮তম আসরের চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয় টিম ফ্যান ক্লাবকে। ফাইনালের বাকি চারটি দলকে পরাজিত করে বিজয়ের মুকুট অর্জন করে টিম ফ্যান ক্লাব। বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দল টিম সে আওয়ার নেইম ও ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজির দল ( আইইউটি) টিম এন্টস যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় রানার আপ হিসেবে প্রতিযোগিতা শেষ করে।

এবারের আসরে প্রতিযোগী অন্যান্য ২৬টি দেশের সাথে প্রতিযোগিতা করে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার প্রয়াসে আট শতাধিক দল বাংলাদেশে থেকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে। বৈশ্বিক বিজয়ী দল তাদের উদ্যোগ বাস্তবায়নের স্বপ্ন পূরণে বিনিয়োগ হিসেবে সর্বোচ্চ ৫০,০০০ পাউন্ড পাবে।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব এম. এ. মান্নান এমপি অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগদান করে সরাসরি বক্তব্য রাখেন। তরুণদের উদ্দ্যেশে দেয়া বক্তব্যে নতুন প্রজন্মকে সঠিক পরিচর্যা ও আদর্শ মানবসম্পদ হিসেবে তৈরির উদ্দ্যেশে ব্যাটেল অফ মাইন্ডস এর মতো এ ধরণের প্রতিযোগিতাগুলোর প্রতি গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

এ বছর ব্যাটেল অফ মাইন্ডস প্রতিযোগীরা আর্থ-সামাজিক বাধা-বিপত্তি, সংস্কৃতি, চাষাবাদ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও শক্তি নিয়ে কাজ করে একটি গ্রহণযোগ্য ব্যবসায়িক পরিকল্পনার মাধ্যমে তার সমাধানের চেষ্টা করেন। এবারের বিজয়ী দল প্লাস্টিক বর্জ্য ও বালুর সংমিশ্রণে এক উদ্ভাবনীয় পরিবেশ বান্ধব ইট তৈরির ধারণা ও সামগ্রিক পরিকল্পনা উপস্থাপন করে যা বাজারে চলমান ইটের তুলনায় অনেকাংশে কম কার্বন নির্গত করবে।

বিএটি বাংলাদেশ ২০০৪ সাল থেকে দেশব্যাপী মেধাভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম ব্যাটেল অফ মাইন্ডস পরিচালনা করে আসছে। চলমান মহামারীর কারণে এবারের আসর ভার্চুয়ালি হলেও দ্বিতীয় বারের মতো তা সফলভাবে সম্পন্ন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিএটি বাংলাদেশের মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান জনাব সাদ জসীম ব্যাটেল অফ মাইন্ডস এর উপযোগিতার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করে বলেন, ব্যাটেল অফ মাইন্ডস একটি অন্যতম প্রধান বৈশ্বিক মেধাভিত্তিক প্রতিযোগিতা হিসেবে দেশের সীমানা পেরিয়েছে। দূরদর্শী মেধাবীদের সেরাটা বের করে এনে স্নাতকের পর তাদেরকে পেশাদার জীবনের জন্য তৈরি করছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply