সিরিয়াল কিলার রসু খাঁসহ ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

|

পোশাককর্মী পারভীন ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় সিরিয়াল কিলার রসু খাঁসহ তিনজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক আবদুল মান্নান এ রায় দেন।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পিপি অ্যাড. সায়েদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সাজাপ্রাপ্ত অন্য দুজন হলেন- জহিরুল ইসলাম ও ইউনুছ। এদের মধ্যে ইউনুছ পলাতক। দণ্ডপ্রাপ্তদের সবার বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায়।

২০১০ সালের ফরিদগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত নয়টি মামলার মধ্যে আজ একটির রায় দেয়া হল। ১১ জন নারী হত্যার দায়ে অভিযুক্ত রসু খাঁ বর্তমানে চাঁদপুর জেলা কারাগারে আছেন।

চাঁদপুরের মদনা গ্রামের ছিঁচকে চোর রসু খাঁ ভালবাসার কাছে হেরে গিয়ে জিদে এক সময় সিরিয়ার কিলার হয়ে যান।

২০০৯ সালের ৭ অক্টোবর ঢাকার টঙ্গীর নিরাশপুর থেকে রসু খাঁকে আটক হয়। এরপর জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে সিরিয়াল কিলিংয়ের মতো চাঞ্চল্যকর তথ্য। একে একে ১১ জন নারীকে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেন রসু খাঁ।

পরবর্তীতে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমিরুল ইসলামের কাছে ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানন্দিতেও ১১ খুনের বর্ণনা দেন তিনি। জবানবন্দিতে তিনি জানান, তার ইচ্ছা ছিল ১০১ নারীকে খুন করে সিলেট মাজারে গিয়ে সন্যাসী হওয়ার।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply