উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতন: আটক গ্রামপুলিশ ও ইউডিসি কারাগারে

|

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ.

নওগাঁর পত্নীতলার আকবরপুরে চোর সন্দেহে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত দুই আসামীকে জেল-হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

আসামীরা হলেন- আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের তথ্যসেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা (ইউডিসি) নূরনবী ও গ্রাম পুলিশ মোজাফ্ফর হোসেন।

বিকেলে নওগাঁর বিজ্ঞ আমলী আদালত-৪ এর বিচারক সিরাজুল ইসলাম আমীদের জবানবন্দি গ্রহণ করে এই আদেশ দেন। আদালতের এই আদেশের বিষয়টি পত্নীতলা থানার ওসি মাজাহার হোসেন নিশ্চিত করেছেন।

ওসি জানান, রোববার বিকেলে নূরনবী ও মোজাফ্ফর হোসেনকে আটক করে থানায় এনে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে আটক দু’জনই শফিকুলকে চোর সন্দেহে আটক করে পা বেঁধে উল্টো করে নির্যাতনের কথা স্বীকার করে। শফিকুলের পা বাঁদে গ্রামপুলিশ মোজাফ্ফর আর লাঠি দিয়ে বেদম মারপিট করে নূরনবী।

সোমবার দুপুরে দুই আসামীকেই আদালতে হাজির করা হয়। বিজ্ঞ বিচারক আসামীদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করে দু’জনকেই জেল-হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার পত্নীতলার মধইল হাটে টাকা চোর (পকেটমার) সন্দেহে শফিকুলকে আটক করে স্থানীয় কয়েকজন। পরে তাকে আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে নিয়ে গিয়ে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতন চালায় নূরনবী, মোজাফ্ফরসহ তাদের সহযোগীরা।

নির্যাতিত শফিকুল পত্নীতলা উপজেলার শুরহট্ট মোল্লা পাড়া গ্রামের মহাম্মদ অলির ছেলে।

শনিবার রাতে ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে রোববার সকালে ঘটনা খতিয়ে দেখতে মাঠে নামে পুলিশ। ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্যদেরকেও আটক করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানায় পুলিশ।

এদিকে, শফিকুলকে নির্যাতনের খবর যমুনা নিউজসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হবার পর সর্বমহলে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়।









Leave a reply