স্বর্ণের বার ডাকাতি মামলায় আবারও ৩ দিনের রিমান্ডে ডিবি’র ৫ সদস্য

|

আলোচিত এই মামলার ৫ আসামিকে আবারও ৩ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

ফেনী প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ২০টি গোল্ডবার (স্বর্ণের বার) ডাকাতির ঘটনায় পুুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) তিন এসআই ও দুই এএসআইকে আবারও ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক কামরুল ইসলাম আজ শনিবার (১৪ আগস্ট) বিকেলে ৫ আসামিকে ৩ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. মনির হোসেন রিমান্ডের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তিনি ৫ আসামির প্রত্যেকের ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন করেছিলেন। কিন্তু মাননীয় আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এর আগেও তারা তিন দিনের রিমান্ডে ছিলেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আরও জানান, ওই স্বর্ণ ব্যবসায়ীর দেয়া তথ্য মতে ২০ টি স্বর্ণের বারের মধ্যে ১৫টি উদ্ধার করা হয়েছে অভিযুক্ত ডিবি’র ওই ওসির বাসা থেকে। বাকী ৫টি উদ্ধারের ব্যাপারে পুনরায় রিমান্ড আবেদন করেছি।

যে ৫ জনকে আবারও রিমান্ডে নেয়া হলো তারা হলেন- এসআই মোতাহের হোসেন, মিজানুর রহমান ও নুরুল হক এবং এএসআই অভিজিত বড়ুয়া ও মাসুদ রানা।

এই মামলার মূল অভিযুক্ত ডিবি’র ওসি সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া বর্তমানে রিমান্ডে রয়েছেন। তার চলমান ৪ দিনের রিমান্ড আগামীকাল রোববার শেষ হবে।

উল্লেখ্য, গত ৮ আগস্ট বিকালে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন স্বর্ণ ব্যবসায়ী গোপাল কান্তি দাস। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহা সড়কে ফেনীর ফতেহপুর রেলক্রসিং এলাকায় পৌঁছলে ডিবির ওই সদস্যরা তার গাড়ি থামান। ওই সময় তার কাছে থাকা ২০ টি গোল্ডবার তারা নিয়ে যান বলে অভিযোগ করেন ভূক্তভোগী ওই ব্যবসায়ী। তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে প্রথমে পুলিশ অভিযুক্ত চারজনকে আটক করে। তাদের জবানবন্দি অনুযায়ী আরও দুজনকে আটক করা হয়।

তল্লাশি চালিয়ে ডিবির ওসি সাইফুল ইসলামের কাছ থেকে ১৫টি বার উদ্ধার করা হয়। এরপর গত ১০ আগস্ট রাতে গোপাল কান্তি দাস তাদের নামে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়।

এদিকে অভিযুক্ত সেই ৬ পুলিশ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ফেনীর পুলিশ সুপার (এসপি) খোন্দকার নুরুন্নবী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply