যেভাবে চলছে জয়পুরহাটের করোনা চিকিৎসা

|

জয়পুরহাট আধুনিক সদর হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের চিত্র।

জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে কিছুদিন আগেও করোনা রোগী ভর্তি না করালেও অক্সিজেন সেবা বাড়ার কারণে বড় কোনো জটিলতা ছাড়া করোনা রোগীদের চিকিৎসা এই হাসপাতালেই হচ্ছে। তবে, আইসিইউ সেবা না থাকায় এখনও জটিল রোগীদের পাঠাতে হচ্ছে রাজশাহী কিংবা বগুড়ায়।

জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে এখন প্রতিদিনই ১৫ থেকে ১৬ জন করোনা রোগী ভর্তি থাকছেন। আগে শ্বাসকষ্ট থাকলেই রোগীকে উন্নত হাসপাতালে পাঠানোর কথা বলা হলেও এখন বদলে গেছে সেই চিত্র। এই হাসপাতালে অক্সিজেন সুবিধা নিয়ে অনেক করোনা রোগী সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন।

বর্তমানে এই হাসপাতালে তিন শতাধিক অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং দশটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর থাকায় করোনা চিকিৎসার সুযোগ বেড়েছে। ফলে মৃত্যুর হারও কমেছে। হাসপাতালে আসা রোগী ও স্বজনরা জানান, আগে এই হাসপাতালে অক্সিজেন পাওয়া যেত না। রোগী নিয়ে অন্য জায়গায় যেতে হত। কিন্তু, এখন অবস্থার উন্নতি হয়েছে, অক্সিজেন পাওয়া যাচ্ছে।

জনবল কম থাকায় কিছুটা চাপ থাকলেও তা সামলে নদিচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে আইসিইউ ইউনিট চালু করা গেলে জটিল রোগীদের চিকিৎসার পথও সুগম হবে বলে মনে করেন তারা।

জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. রাশেদ মোবারক জুয়েল বলেন, আমাদের এখানে করোনার সব ধরণের রোগীই আসে। শুধু যাদের অবস্থা একেবারেই খারাপ, আইসিইউতে নিতে হয় তারা ছাড়া সবাইকেই আমরা কমবেশি এই হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে পারছি।

জয়পুরহাটে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে পঞ্চাশ জন। বর্তমানে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা পাঁচ শতাধিক। এর মধ্যে বিশ-পঁচিশ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন হাসপাতালে বাকিরা চিকিৎসা নিচ্ছেন বাড়িতেই।

/এস এনো





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply