ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চিরচেনা যানজট

|

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানজটে তীব্র যানজটে নাকাল যাত্রীরা।

গাজীপুর প্রতিনিধি:

করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলার উদ্দেশ্যে দীর্ঘ চার মাসের বিধিনিষেধ শেষ হয়েছে
গতকাল মঙ্গলবার। আট শর্তে আজ বুধবার থেকে তুলে নেয়া হয়েছে বিধিনিষেধ। শুরু হয়েছে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল।

সকালের দিকে মহাসড়কে গাড়ির সংখ্যা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বেড়েছে যান চলাচল। যানবাহনের চাপ বাড়ায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বেশ কিছু জায়গায় দেখা দিয়েছে যানজট। এসব জায়গায় থেমে থেমে চলছে গাড়ি। ফলে পুরনো দূর্ভোগ সাথী হয়েছে এই মহাসড়কে চলাচলকারী সাধারণ যাত্রীদের।

আজ বুধবার (১১ আগস্ট) সকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাস কম থাকায় দীর্ঘক্ষণ সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যায় শত শত যাত্রীকে। বাসস্টপে যাত্রীবাহী বাস এসে দাঁড়ানোর সাথে সাথে হুড়োহুড়ি করে বাসে উঠতে দেখা গেছে যাত্রীদের। এতে পুরোপুরি উপেক্ষিত ছিল স্বাস্থ্যবিধি। এছাড়াও অধিকাংশ যাত্রী ও বাসের হেলপারদের মাস্ক পরতে দেখা যায়নি। কেউ কেউ মাস্ক পড়লেও থুতনির নিচে ছিলো সেই মাস্ক।

তাছাড়া গণপরিবহণে আসন সংখ্যা অনুযায়ী যাত্রী পরিবহণের নির্দেশনা থাকলেও সেটি মানছেন না বাস চালকরা। আসন সংখ্যার বাইরেও দাঁড়িয়ে গাদাগাদি করে যাত্রীবহন করতে দেখা গেছে অধিকাংশ বাসে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর থেকে আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত ঢাকামুখী লেনে রয়েছে তীব্র যানজট। দীর্ঘক্ষণ যানজটে আটকা পড়ায় অফিসগামী যাত্রীরা বিপাকে পড়েছেন। কেউ কেউ বাস থেকে নেমে পায়ে হেঁটে মহাসড়কের ওই অংশ পাড়ি দেন।

মহাসড়কের অপর পাশে টঙ্গী ব্রিজ থেকে হোসেন মার্কেট পর্যন্ত যানজট রয়েছে। এই অংশে থেমে থেমে চলছে গাড়ি। টঙ্গী-কালিগঞ্জ সড়কের স্টেশন রোড থেকে পুবাইলের মিরের বাজার পর্যন্ত যান চলাচলে ধীরগতি এখনও রয়েছে। লকডাউন তুলে দেয়ার প্রথম দিনেই এমন যানজটে আটকা পড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেকে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সড়কে গণপরিবহণ চলাচল শুরু হওয়ায় যানবাহনের চাপ বেড়েছে, তাই কিছুটা যানজট এখনও রয়েছে। মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা নিরলসভাবে কাজ করছে। দ্রুত যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply