স্বামী হারালেন, শিক্ষিকা থেকে হলেন পরিচ্ছন্নতাকর্মী; মায়িশার পাশে দাঁড়ালেন অনেকে

|

বাবা-মা ও দুই কন্যা সহ মায়িশা ফারাহ। ছবি: সংগৃহীত

বগুড়া ব্যুরো:

করোনা মহামারিতে আরও অনেকের মতো কঠিন দুর্বিপাকে পড়েন বগুড়ার মায়িশা ফারাহ। পেশায় ছিলেন স্কুল শিক্ষিকা। স্বামী ও চাকরি হারিয়ে হয়ে গেলেন পরিচ্ছন্নতা কর্মী। মহামারি তার জীবনকে যেন এক নিমেষেই তছনছ করে দিলো। তবে, এ বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে উঠে আসার পর মায়িশার পাশে দাঁড়িয়েছেন অনেকে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মায়িশা ফারাহ (২৪) বগুড়া শহরের নারুলী এলাকার মরিয়ম কিন্ডারগার্টেন স্কুল শিক্ষকতা করতেন। গত বছর করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের পর চাকরিটি চলে যায় তার। এ বছরের জানুয়ারিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান তার স্বামী মতিউর রহমান (২৯)। ঘোর অন্ধকার নেমে আসে মায়িশার জীবনে।

কিন্তু জীবন তো থেমে থাকার নয়। দীর্ঘদিন কর্মহীন থাকার পর লকডাউনের সময়ে হোম ডেলিভারির কাজ শুরু করেন তিনি। সেই কাজও একপর্যায়ে বন্ধ হয়ে যায়। নিরুপায় হয়ে পরিচ্ছন্নতা কর্মীর কাজ নেন খাদ্যপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আকবরিয়া গ্রুপে।

সম্প্রতি, ওই শিক্ষিকার দুর্দশার কথা গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন অনেকে। কেউ দিয়েছেন খাদ্য সহায়তা, কেউ নগদ অর্থ। আবার কেউ চাকরির প্রস্তাব দিয়েছেন। পাশে দাঁড়িয়েছে তার নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানও। মঙ্গলবার পরিচ্ছন্নতা কর্মী থেকে তাকে পরিচ্ছন্নতা বিভাগের কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তা পদে নিয়োগের কথা জানিয়েছে আকবরিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান আলী আলাল।

এদিকে, গণমাধ্যমে মায়িশার করোনাকালীন সংকটের কথা জেনে তাকে নগদ অর্থ এবং পরিবারের সদস্যদের নতুন কাপড় উপহার দিয়েছেন পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী। শহরের বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীও নগদ অর্থ এবং খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন এই শিক্ষিকার পরিবারকে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply