কাল থেকে ওমরাহ শুরু, বাংলাদেশিদের অপেক্ষা করতে হবে আরও কিছুদিন

|

সম্প্রতি ওমরাহ পালনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। শীঘ্রই ওমরাহ পালনের জন্য সৌদি যেতে পারবেন বাংলাদেশিরা। তবে এখনই ওমরাহ পালনে সৌদি আরব যাওয়ার সুযোগ হচ্ছে না। কেননা, দু’দেশের এজেন্সি মালিকদের মধ্যে কোনো চুক্তি হয়নি। পাশাপাশি রয়েছে সৌদি সরকারের নানা বিধিনিষেধ।

সৌদি সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ওমরাহ পালনের সুযোগ উন্মুক্ত হয় ১০ আগস্ট থেকে। এ খবর শোনার পর থেকেই অপেক্ষার পালা শুরু হয়েছে বাংলাদেশি মুসল্লিদের। তারা বলছেন, অনেকদিন বন্ধ থাকার পর আবার ওমরাহর সুযোগ উন্মুক্ত হওয়ায় তারা শীঘ্রই সৌদি যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী।

ওমরাহ পালন ইসলামে নফল ইবাদত হলেও এ নিয়ে বাড়তি আগ্রহ আছে মুসল্লিদের। সামর্থবান অনেকেই নিয়মিত পরিবার-পরিজনসহ ওমরাহ পালন করে থাকেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় দেশে এখনও কোনো ওমরাহ এজেন্সি নিয়োগ দেয়নি। ফলে চুক্তি করতে পাছেন না এজেন্সি মালিকরা, চুক্তি না হওয়ায় ওমরাহর ফিও নির্ধারণ করা যাচ্ছে না। হজ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি শাহদাত হোসাইন তসলিম জানাচ্ছেন, বাংলাদেশ থেকে ওমরাহ পালনে আগ্রহী মুসল্লিদের এখনই ওমরাহ পালনের কোনো সুযোগ নেই। এজন্য তাদের আরও অন্তত এক মাস অপেক্ষা করতে হতে পারে।

মুসাফির ট্রাভলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এইচ এম আতাউর রহমান জানালেন, ইতোমধ্যে তারা ওমরাহ করতে আগ্রহীদের বিভিন্ন প্রশ্ন নিয়ে অনেক ফোন কল পাচ্ছেন।

বছরে গড়ে আড়াই লাখের বেশি বাংলাদেশি ওমরা পালন করেন। দেড় বছর বন্ধ থাকায় তৈরি হয়েছে বড় ধরনের জট। এ অবস্থায় অতিমুনাফা লোভী এজেন্সি নিয়ে অনেকে শঙ্কা প্রকাশ করলেও হাব সভাপতি বলছেন, অনিয়ম হবে না।

এবার ওমরাহ পালনের জন্য প্রত্যেক মুসল্লিকে পূর্ণ ডোজ টিকা নেয়ার শর্ত দেয়া হয়েছে। তাছাড়া এবার ওমরাহ পালনের সুযোগ পাবেন না ১৮ বছরের কম বয়সীরা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply