স্ত্রীকে খুন করতে দুই হাতে চাপাতি নিয়ে দরজায় স্বামী

|

পরে খবর পেয়ে পুলিশ এক ঘণ্টার চেষ্টায় তাকে আটক করতে সক্ষম হয়।

স্ত্রীকে হত্যা করবেন স্বামী। তাই দুই হাতে দুটি চাপাতি নিয়ে ছুটে গেছেন বাসায়। ভয়ঙ্কর অবস্থায় স্বামীকে দেখে দরজা বন্ধ করে দেন স্ত্রী। বাসায় ঢুকতে না পেরে দুই হাতে থাকা চাপাতি দিয়ে দরজায় কোপাতে শুরু করেন স্বামী।

সিনেমার কোনো দৃশ্য নয়, চট্টগ্রামে বাস্তবেই ঘটেছে এই ঘটনা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এক ঘণ্টার চেষ্টায় ওই ব্যক্তিকে আটক করতে সক্ষম হয়।

চট্টগ্রাম মহানগরীর গোসাইলডাঙ্গায় বাসার দরজার সামনে দুই হাতে দুই চাপাতি নিয়ে রাগান্বিত অবস্থায় কোপাতে থাকা ওই ব্যক্তির নাম সুজন দাশ।

দাম্পত্য কলহের জের ধরে স্ত্রীকে হত্যার জন্য চাপাতি দুটি কিনে আনেন তিনি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গেলে আরও ক্ষেপে যান সুজন। এক পর্যায়ে স্ত্রীকে হত্যা করতে না পারলে নিজ গলায় চাপাতি রেখে আত্মহত্যার হুমকি দেন তিনি।

এভাবে প্রায় এক ঘণ্টা কেটে যাওয়ার পর অবশেষে নানাভাবে বুঝিয়ে, আশ্বস্ত করা সম্ভব হয় তাকে। পরে কিছুটা নমনীয় হলে কৌশলে তাকে আটক করে ডবলমুরিং থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

সিএমপির ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন জানান, একাধিক টিম এবং সিভিলে পুলিশ পাঠিয়ে এক ঘণ্টার চেষ্টায় তাকে আটক করত সক্ষম হন তারা। অভিযুক্ত সুজন দাশ তার স্ত্রী, শ্বশুর ও তার বাচ্চাদের হত্যার চেষ্টা করছিলেন বলেও জানান তিনি।

পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এই ঘটনার কারণ হিসেবে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই পরস্পরের বিরুদ্ধে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ আনেন। অভিযুক্ত সুজনের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী বাদি হয়ে ডবলমুরিং থানায় হত্যাচেষ্টার মামলা করেছেন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply