আসামি ধরতে গিয়ে নিজেরাই গ্রেফতার!

|

মিঠাপুকুর থানা, রংপুর। ছবি: সংগৃহীত।

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর:

রংপুরের মিঠাপুকুরে পুলিশ সেজে আসামি ধরতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন দুই যুবক। তাদের কাছে আইডি কার্ড না পেয়ে তারা ভুয়া পুলিশ বুঝতে স্থানীয়রা তাদের গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

রোববার (৮ আগস্ট) সকালে রংপুরের মিঠাপুকুরের কাফ্রিখাল ইউনিয়নের কোনাপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

মিঠাপুকুর থানার ওসি (তদন্ত) জাকির হোসেন জানান, গ্রেফতারকৃত দুই যুবক হলেন উপজেলার লতিবপুর ইউনিয়নের জায়গীরহাট এলাকার বাতাসন দূর্গাপুর মৌসুমীপাড়া গ্রামের কামরুজ্জামান এবং জায়গীর বাস স্ট্যান্ড মসজিদ সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা দুলাল মিয়া। কামরুজামান রংপুর শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে ড্রাইভারের চাকরী করতেন। ছয় মাস আগে তার চাকরী চলে যায়। অন্যদিকে, সাইফুল ইসলাম স্থানীয় কাঁচামাল ব্যবসায়ী।

ওসি আরও জানান, আরিফুল ইসলাম নামে এক মোটরসাইকেল মেরামতকারী কাফ্রিখাল ইউনিয়নের মহদীপুর গ্রামে বিয়ে করেন। সেখানে বউয়ের সাথে মনোমালিন্য হলে গত ২৭ আগস্ট শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে বেধড়ক মারপিট করে। পরবর্তীতে আরিফুলের পরিবারের লোকজনও তার শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে মারধর করে। এ ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় মামলা করে আরিফুলের শ্বশুর বাড়ির লোকজন। মামলার পর দুলাভাইয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে যায় আরিফুল ইসলাম।

এরই মধ্যে রোববার সকালে আরিফুলের দুলাভাইয়ের বাসায় কামরুজ্জামান ও দুলাল মিয়া নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে তাকে গ্রেফতার করতে চায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাদের কাছে পুলিশের আইডি কার্ড দেখতে চাইলে তারা তা দেখাতে পারে না। তারা ভুয়া পুলিশ বুঝতে পেরে স্থানীয় জনতা তাদের গণধোলাই দিয়ে আটকে রাখে। পরে ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ এসে তাদের গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

এই ঘটনায় আরিফুলের বোন বেবি নাজনিন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। ওই দুই ভুয়া পুলিশকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

/এস এন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply