ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে টিকা নিতে লাগছে ইউপি সদস্যদের টোকেন

|

ইউপি সদস্যদের দেয়া টোকেন দেখিয়ে নিতে হচ্ছে টিকা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার হরষপুরে টিকা নিতে লাগছে ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যদের টোকেন। টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা ব্যক্তিরা টিকা কার্ড নিয়ে কেন্দ্রে গেলেও টোকেন ছাড়া নিতে পারছেন না টিকা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

তবে ইউনিয়ন পরিষদ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, একজন পদস্থ সরকারি কর্মকর্তার পরামর্শে এলাকার মানুষের সুবিধার্থে এটা করা হয়েছে। যাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেওয়ার কথা তাদেরকে টোকেন দেওয়া হচ্ছে। এতে টিকা কেন্দ্রে ভিড় কম হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধিও নিশ্চিত থাকছে। যারা ফেরত গেছেন তাদেরকে পরে টিকা নেয়ার জন্য বলা হচ্ছে।

সারা দেশের ন্যায় শনিবার (৭ আগস্ট) বিজয়নগরের হরষপুর ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে শনিবার সকাল ৯টা থেকে টিকা দেয়া শুরু হয়। টিকা দিতে আগ্রহীদের মধ্যে যারা মেম্বারদের টোকেন নিয়ে এসেছেন তাদেরকেই শুধু টিকা দেওয়া হয়। এর আগে ইউনিয়ন পরিষদের সভা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওই ইউনিয়নের ১, ২, ৪ এবং ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ৮০টি এবং ৩, ৮ এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৬৫ টি টোকেন দেয়া হয়েছে। এছাড়া ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ৬০টি এবং ৬ নম্বর ওয়ার্ডে ২৫টি টোকেন দিয়েছে সদস্যরা। টোকেনে ইউপি সদস্যদের সিলসহ স্বাক্ষর ও সিরিয়াল নম্বর দেয়া ছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা রশিদ মিয়া অভিযোগ করেন, তিনি রেজিস্ট্রেশন করে এসেও টিকা নিতে পারেননি। কেন্দ্র থেকে বলে দেয়া হয়েছে টিকা শেষ, ১৪ তারিখ এসে যেন টিকা নেয়া হয়। তার কাছে ইউপি সদস্যদের দেয়া কোনো টোকেন ছিল না।

৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. মধু মিয়া জানা, পরিষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এভাবে টোকেন দেওয়া হয়েছে। কারণ মাত্র ৬০০ ডোজ টিকা বরাদ্দ ছিল। কিন্তু, টিকা নিতে আগ্রহীর সংখ্যা হাজার হাজার। যে কারণে বয়স্কদেরকে অগ্রাধিকার দিয়ে টোকেন দেওয়া হয়। অন্য যারা কার্ড নিয়ে এসেও টিকা পায়নি তাদেরকে পরে এসে নিতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হরষপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সারোয়ার হোসেন ভূঁইয়া সাংবাদিকদের জানান, উপজেলার একজন পদস্থ সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে পরামর্শ করে এটা করা হয়েছে। চাহিদার তুলনায় টিকা কম বলে বয়স্কদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেওয়ার জন্য এটা করা হয়েছে।

/এস এন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply