ধর্ষণচেষ্টার শাস্তি ১০ বার কান ধরে ওঠবস!

|

প্রতীকী ছবি।

নওগাঁয় এক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার শাস্তি হিসেবে গ্রামের মাতব্বররা অভিযুক্তকে ১০ বার কান ধরে ওঠবস করিয়েছেন। অথচ, প্রচলিত আইনে ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় সর্বনিম্ন পাঁচ বছর কারাদণ্ড ও জরিমানা করার কথা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) নওগাঁর নিয়ামতপুরের পাঁড়ইল ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম খোকন মিয়া (৩৫)।

ভুক্তভোগী তরুণীর পরিবার জানায়, বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে ঘরে ঢুকে তরুণীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে অভিযুক্ত খোকন মিয়া। ঘটনাটি টের পেয়ে স্বজন ও প্রতিবেশীরা ছুটে এসে খোকন মিয়াকে হাতেনাতে ধরে বিষয়টি গ্রামের মাতব্বরদের জানান। গ্রামের মাতব্বরেরা তরুণীর পরিবার ও অভিযুক্তের পক্ষের লোকজনকে নিয়ে সালিশি বৈঠকে ধর্ষণচেষ্টার বিচার করেন।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনার পরদিন সকালে বৈঠকে ইউপি সদস্য ইউসুফ আলীসহ কয়েকজন দুই পক্ষের কাছ থেকে ঘটনা শোনার পর তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অপরাধে অভিযুক্ত খোকন মিয়াকে ১০ বার কান ধরে ওঠবস করান। এছাড়া পরবর্তীতে খোকন মিয়া এমন কাজ করবে না বলে মুচলেকা নেন।

তরুণীর বাবা বলেন, রাতেই হাতেনাতে ধরে ফেলি খোকনকে। বিষয়টি নিয়ে মামলা করলে অনেক টাকা-পয়সা খরচ হবে বলে আমাকে থানায় মামলা না করার পরামর্শ দেন স্থানীয় ইউপি সদস্য। এরপর গ্রামেই বিচার বসে। এতে তাকে কান ধরে ওঠবস করার শাস্তি দেয় মাতব্বররা।

ইউপি সদস্য ইউসুফ আলী বলেন, সালিশি বৈঠকে আমি ছিলাম কিন্তু গ্রামের মুরব্বিরাই এই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।

নিয়ামতপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

/এস এন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply