নতুন ঠিকানা কি পিএসজি?

|

পরবর্তী ঠিকানার খোঁজে মেসি।

বার্সেলোনায় থাকা হলো না লিওনেল মেসি’র। লা লিগার নতুন নিয়ম এক হতে দেয়নি তাদের। বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে কাতালান ক্লাবটি। ফলে ক্যারিয়ারের সূচনা থেকে বার্সেলোনার সাথে ২১ বছরের সম্পর্কের পরিসমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে এলএমটেনের। ধারণা করা হচ্ছে তার নতুন ঠিকানা হতে পারে ফ্রেঞ্চ জায়ান্ট পিএসজি।

আজ বিষাদ ছুঁয়েছে মন! শিরোপা হাতছাড়া হলেও কখনও এতটা নিস্তব্ধতা আসেনি ক্যাম্প ন্যু’তে। যতটা বিষাদ ছড়িয়েছে গতকাল ক্লাবটির আকষ্মিক এক ঘোষণায়। বার্সেলোনায় আর থাকা হচ্ছে না ঘরের ছেলে লিওনেল মেসির। ক্লাব আর মেসির মাঝে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে লা লিগা কর্তৃপক্ষের নতুন আর্থিক নিয়ম।

গত ১ জুলাই প্রথমবারের মতো ফ্রি এজেন্টের স্বাদ পাওয়া এলএমটেন এখন আসলেই মুক্ত। অবশেষে শেষ হলো তার২১ বছরের বার্সেলোনা অধ্যায়।

অধিকার ছাড়িয়া দিয়া, অধিকার রাখিতে যাইবার মতো এমন বিড়ম্বনা আর নেই- রবি ঠাকুরের কথাটি কি দারুনভাবেই না মিলে গেলো মেসির সাথে। গত মৌসুমের মাঝামাঝি বিভিন্ন কারণে সৃষ্ট অভিমানে বার্সা ছাড়তে চেয়েছিলেন এই আর্জেন্টাইন জাদুকর। কিন্তু সেবার নিয়মের বেড়াজালে ছুটতে চেয়েও পারেননি। আর এবার থাকতে চেয়েও পারলেন না নিয়মের বাঁধায়।

বার্সেলোনার সাথে নতুন চুক্তি নবায়নের প্রায় সবই প্রস্তুত ছিলো। এতদিন যা পেতেন তার অর্ধেক বেতনে মেসি থাকবেন আরও ৫ বছর। বহুল প্রত্যাশিত সেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার কথা ছিলো গতকাল বৃহস্পতিবার। কিন্তু ঘোষণা এলো পুরো উল্টো। সমর্থকদের স্বপ্ন চুরমার করে ক্লাব কর্তৃপক্ষ জানালো, বার্সেলোনায় থাকা হচ্ছে না মেসির। আর সেটি দু’পক্ষের প্রবল ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও।

প্রিয় ন্যু ক্যাম্পে আর থাকা হলো না ক্লাবটির ইতিহাসে রেকর্ড শিরোপাজয়ী ও গোলদাতা লিওনেল মেসির। বিষাদের মাঝে প্রশ্নও উঠেছে, মেসির নতুন গন্তব্য কোথায়?

আলোচনায় থাকা ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি মেসিকে নেয়ার আলোচনা থেকে অনেকটাই সরে গেছে। কারণ ইংলিশ তারকা জ্যাক গ্রিলিশকে গতকালই তারা দলে ভিড়িয়েছে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডে।

মেসির নতুন গন্তব্য হিসেবে তাই এখন সবচেয়ে জোরেশোরে যে ক্লাবের নাম শোনা যাচ্ছে সেটি ফরাসি ক্লাব পিএসজি। সেখানে দীর্ঘদিনের বন্ধু নেইমার ও ডি মারিয়ার সঙ্গে জুটি বেঁধে আরও একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের আশা পূরণ করতেই পারেন মেসি। আর সে আলোচনার পালে হাওয়া দিচ্ছে গত বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেইমারের আপলোড করা ছবিটি।

তবে অর্থনৈতিক চাপে শেষ পর্যন্ত পিছু হটতেও পারে পিএসজি। কারণ ইতোমধ্যেই বেশকিছু নতুন খেলোয়াড়কে দলে নেয়া পিএসজিও আছে অর্থনৈতিক চাপে। আর কোভিড ১৯ এর প্রভাবে অর্থনৈতিক ক্ষয়ক্ষতি কম হয়নি তাদের। আর মেসিকে দলে নিতে চাওয়া মানেই একটা বড় অ্যামাউন্টের পয়সা খরচের খাত সৃষ্টি হওয়া। যদিও

রোনাল্ড কোম্যানের দায়িত্বে আর মাত্র ১২ দিন পর আবারও লা লিগা ক্যাম্পেইন শুরু করতে যাচ্ছে বার্সা, তবে এবার গত ২১ বছরের মধ্যে এই প্রথম দলে থাকছেন না লিও মেসি। থাকবেন হয়তো নতুন কোনো ঠিকানায়।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply