আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধের আশঙ্কা করছে যুক্তরাষ্ট্র

|

একের পর এক শহরে তালেবানের হামলার কারণে আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ শুরুর আশঙ্কা করছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতোমধ্যে তারা আফগান বাহিনীকে বিমান হামলার মাধ্যমে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। জোরালো প্রতিরোধের পরও হেলমান্দ প্রদেশের রাজধানী লস্কর গাহ দখলের দ্বারপ্রান্তে তালেবান।

দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ- হেলমান্দের ১০টি জেলার ৯টিই তালেবানের নিয়ন্ত্রণে। প্রদেশের রাজধানী লস্কর গাহের ভেতরও ঢুকে পড়েছে তারা। তবে শহরের দখল ধরে রাখতে, মরিয়া আফগান বাহিনী। হঠাৎ মার্কিন সেনা প্রত্যাহারকে চলমান এই সংঘাতের জন্য দায়ী করছেন অনেকে। পেন্টাগন বলছে, নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে আফগান বাহিনীকেই। তবে বিমান হামলার মাধ্যমে সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্র।

পেন্টাগন মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, দেশ-জাতি ও জনগণকে রক্ষা করবে, সেটা একান্তই আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপার। আমরা শুধু বিমান অভিযানের মাধ্যমে সহযোগিতা করতে পারি। দেশটির কোথায়, কখন বিমান হামলা চালালে আফগান বাহিনীর জন্য সুবিধা হবে; সেটা বোঝার সক্ষমতা-সামর্থ্য দুটোই আছে যুক্তরাষ্ট্রের।

একের পর এক শহরে সংঘাত ছড়ানোয়, আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধের আশঙ্কাও জানিয়ে রেখেছে ওয়াশিংটন। এখনও জোর দিচ্ছে আলোচনার ওপর।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস জানান, দোহায় এখনও আলোচনা অব্যাহত আছে। তালেবান যদি নিজেদের প্রতিশ্রুতি না রাখে তাহলে আন্তর্জাতিকভাবে একঘরে হবে। এমন আচরণে নিজ দেশে জনগণেরও সমর্থন হারাবে তারা। এ অবস্থা চলতে থাকলে গৃহযুদ্ধেই গড়াতে পারে দেশটির পরিস্থিতি। যেটা আমাদের জন্য মূল উদ্বেগের বিষয়।

গ্রাম ও সীমান্ত এলাকায় অনেকটা বিনা বাধায় জয়ী হলেও শহরে তীব্র লড়াইয়ের মুখে পড়তে হচ্ছে তালেবানকে। সর্বাত্মক লড়াই করছে আফগান বাহিনী। তারা বলছে, কেবল আফগানিস্তান নয়, সারা বিশ্বের নিরাপত্তার জন্যই প্রতিহত করতে হবে তালেবানকে।

আফগানিস্তানের লস্কর গাহ’ কমান্ডার জেনারেল সামি সাদাত বলেন, এটা শুধু আফগানদের যুদ্ধ নয়। কাবুল তালেবানের দখলে গেলে সারা বিশ্বের নিরাপত্তাই প্রশ্নবিদ্ধ হবে। কারণ, সশস্ত্র দলটিকে সমর্থন যোগায় অন্যান্য দেশের কট্টরপন্থীরা। তাদের বিজয় নিশ্চিত হলে ইউরোপ, আমেরিকায় উগ্রপন্থা ছড়িয়ে পড়বে, হুমকিতে পড়বে বৈশ্বিক নিরাপত্তা।

জাতিসংঘের হিসাবে লস্কর গাহে চারদিনের সংঘাতে প্রাণ গেছে কমপক্ষে ৪০ বেসামরিক নাগরিকের। স্থানীয়দের দাবি প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply