বক্তব্য প্রত্যাহার করলেন মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী

|

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।


টিকা নেয়া ছাড়া ১৮ ঊর্ধ্ব নাগরিকরা ১১ আগস্টের পর ঘর থেকে বের হতে পারবেন না মর্মে দেয়া বক্তব্য প্রত্যাহার করে নিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বুধবার গণমাধ্যমে দেয়া বক্তব্যে মন্ত্রী জানান, গতকাল যা বলেছিলাম সেটা পর্যালোচনা করে দেখেছি যে এটি বাস্তবসম্মত নয়, তাই এটি প্রত্যাহার করেছি।

এর আগেই অবশ্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৮ বছরের উর্দ্ধে সকল নাগরিককেই পর্যায়ক্রমে ভ্যাক্সিনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। তবে “টিকা নেয়া ছাড়া ১৮ বছরের উর্দ্ধে কেউ ১১ আগস্টের পর হতে বাইরে বের হতে পারবে না” মর্মে বিভিন্ন গণমাধ্যমে মন্ত্রীর যে বক্তব্য প্রচার হচ্ছে বক্তব্যের সে অংশটুকু প্রত্যাহার করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

বুধবার, তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদও এ বিষয়ে কথা বলেছেন। তিনি জানান, ১৮ বছরের বেশি কেউ ভ্যাকসিন ছাড়া বের হলে শাস্তি হবে; এমন কোনো সিদ্ধান্ত সরকার নেয়নি। বরং মাস্ক পরা কীভাবে বাড়ানো যায়, স্বাস্থ্যবিধি কীভাবে মানা যায় সেসব বিষয়ে ওই সভায় আলোচনা হয়েছে।

এর আগে, মঙ্গলবার রাতেই মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের এমন বক্তব্যের সাথে একমত নয় বলে জানায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে তারা জানায়, টিকা নেয়া ছাড়া ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ বাইরে বের হতে পারবে না- বলে যে সংবাদটি প্রচার হচ্ছে তা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়নি। প্রচারিত এই তথ্য সঠিক নয়।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানান, আগামী ১১ আগস্ট থেকে বিধিনিষেধ তুলে দেওয়ার ঘোষণা দেয়া হলেও ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে টিকা না নেয়া কোনো ব্যক্তি ঘরের বাইরে বের হতে পারবে না। কেউ বাহিরে বের হলে তাকে শাস্তির মুখে মুখোমুখি হতে হবে।

তিনি আরও জানান, ‌১১ তারিখ থেকে কঠোরভাবে আইন প্রয়োগ করা হবে। তবে আইন না করলেও অধ্যাদেশ জারি করে হলেও শাস্তি দেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। তিনি জানান, যেহেতু সংসদ বন্ধ তাই আইন পাস করা সম্ভব নয়।

পরবর্তীতে এ বিষয়ে জানতে যমুনা টেলিভিশনের টক শো ‘আমজনতা’য় যুক্ত করা হয় মন্ত্রীকে। এমন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের মতো পরিস্থিতি আছে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ৭ তারিখ থেকে ১৪ হাজার কেন্দ্রে একযোগে ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে। আমরা আশা করছি, যারা কর্মজীবী, যেমন দোকানদার, রিক্সাচালক, অর্থাৎ যারা কাজে যাবেন, তারা যেন বাড়ির কাছ থেকে ভ্যাকসিন নিতে পারেন; অর্থাৎ ভ্যাকসিন নিতে তাদের ছোটাছুটি করতে হবে না। ভ্যাকসিন তাদের কাছে চলে যাবে। যাদের বাইরে যেতে হয়, তারা আগে ভ্যাকসিন নেবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর এখনও ২৫ বছরের কম বয়সী নাগরিকদের টিকার আওতায় আনেনি এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মন্ত্রী বলেন, যদি কোনো কারণে সেটা সম্ভব না হয়, তাহলে তো এই আইন কার্যকর হবে না। এটা তো কোরআন-হাদিস নয় যে পরিবর্তন করা যাবে না। সরকারের সক্ষমতা না থাকলে তো মানুষকে দোষারোপ করা যাবে না। কেউ যদি ভ্যাকসিন নিতে চায়, তবে সে তা পারবে। তাই কেউ যেন ভ্যাকসিন না নিয়ে বের না হন। এসময় পর্যায়ক্রমে সবাই টিকা পাবেন বলে মন্ত্রী আশ্বস্ত করেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply