চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে ইন্দোনেশিয়া, বিশ্রামেরও সুযোগ নেই চিকিৎসকদের

|

ছবি: সংগৃহীত

ইন্দোনেশিয়ার হাসপাতাল গুলোতে চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীর তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। সীমিত সংখ্যক জনবল দিয়েই চলছে করোনা রোগীর সেবা। রোগীর চাপ বাড়তে থাকায় হিমশিম অবস্থা চিকিৎকদের। ডিউটি করতে হচ্ছে দীর্ঘ সময়।

ডাক্তাররা বলছেন, দেশকে পুরোপুরি করোনা মুক্ত না করা পর্যন্ত দমতে চান না তারা। পাশাপাশি সবাইকে বিধি নিষেধ মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়।

ইরমান পাহলেপি নামে এক চিকিৎসক জানান করোনা আক্রান্ত হয়ে আবারও ফিরে এসে চিকিৎসায় যোগ দেয়ার কথা, আমার যখন করোনা পজিটিভ আসলো সাথে সাথেই এক্স-রে, ব্লাড টেস্টসহ শরীরের যাবতীয় পরীক্ষা করিয়ে নিয়েছি। যখন দেখলাম সব কিছু স্বাভাবিক আছে তখন বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিয়েছি। আমার মনে হয়েছে এতো রোগী জায়গা পাচ্ছে না সেখানে শুধু শুধু হাসপাতালে কেন থাকবো। সুস্থ হয়ে আবার ফিরেছি কাজে। তবে অল্পতেই ক্লান্ত হয়ে যাই।

প্রতিটি হাসপাতালে আসনের তুলনায় কয়েক গুন বেশি রোগী ভর্তি রয়েছে। তাদের সেবায় দিন রাত কাজ করতে করতে হাপিয়ে উঠছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। প্রত্যেককে ডিউটি করতে হচ্ছে প্রায় দ্বিগুন সময়।

অনেক চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য কর্মীরা করোনা রোগীর সেবা দেয়ায় আতঙ্কে পরিবারের কাছেও যেতে পারছেন না। ২৪ ঘন্টাই কাটছে হাসপাতালে।

ইরমান পাহলেপি আরও জানান, গত বছরের চেয়ে কয়েক গুন বেশি কাজ করতে হচ্ছে আমাদের। কারণ জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতিদিনই রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। প্রত্যেক শিফটে এতো কাজের চাপ যেন খাওয়ার সময় পর্যন্ত পাই না। কারণ একজন স্বাস্থ্যকর্মী হয়ে কখনও রোগীদের আহাজারি সহ্য করতে পারি না।

তবে পুরোপুরি দেশ করোনা মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত হাল ছাড়বেন না বলে জানিয়েছেন এসব চিকিৎসকরা। দেশটিতে করোনায় এখন পর্যন্ত ১২শ’র বেশি স্বাস্থ্যকর্মীর মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ৬ শতাধিক চিকিৎসক।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply