চিকিৎসা নিতে গিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ, চিকিৎসকসহ আহত ৩

|

স্টাফ রিপোর্টার, নেত্রকোণা:

নেত্রকোণার মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিতে গিয়ে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসকসহ তিন জন আহত হন।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) সন্ধ্যার পর মোহনগঞ্জ হাসপাতাল চত্বরে জরুরী বিভাগে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এছাড়াও হাসপাতালের অক্সিজেন সিলিন্ডার ও জানালার কাঁচ ভাংচুর করেছে হামলাকারীরা। হামলায় আহত হয়েছেন হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্ব পালনরত চিকিৎসক জান্নাতুন নেচ্ছা চাঁদনী, স্টাফ মো. শাহজাহান সিরাজ ও ইমার্জেিন্স অ্যাটেন্ডেন্ট মো. সুমন।

এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন, উপজেলার কলেজ রোড এলাকার মিটু (২৮) এবং টেঙ্গাপাড়া এলাকার রাজন (২৫)।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা সদরের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। পরে উভয় পক্ষের লোকজন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যায়। সন্ধ্যার পর জরুরি বিভাগে দুপক্ষের দেখা হলে আবারও সংঘর্ষ শুরু হয় তাদের। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ও আরও দুজন আহত হয়। এছাড়াও হাসপাতালের অক্সিজেন সিলিন্ডার ও জানালার কাচ ভাঙচুরও করে হামলাকারীরা।

এদিকে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান, বারহাট্টা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান ও ওসি (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বর্তমানে হাসপাতালে পুলিশি টহল চলমান রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তা নুর মোহাম্মদ শামসুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে দুজনের নাম উল্লেখসহ ১৫/২০ জনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

মোহনগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন। এখন পর্যন্ত দুইজনকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply