কেন বাউন্ডারির পর বল বদলানোর শর্ত

|

গ্যালারিতে বল গেলে তা আর মাঠে ফিরে আসবে না। নতুন বলে শুরু হবে খেলা। বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টি-২০তে ছিলো এমন নিয়ম।

এর আগে অস্ট্রেলিয়া দল যখন মাঠে ঢুকতো তখন বন্ধ থাকতো পুরো মিরপুর। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে থাকতো হাজার হাজার নিরাপত্তা কর্মী। তবে এবার সেই দৃশ্য নেই। নিরাপত্তা নয় এবার অস্ট্রেলিয়ার চিন্তার কারণ করোনা। জৈব সুরক্ষা বলয় বা বায়োবাবল নিশ্চিত করতে কোনো ছাড় দিতে রাজি ছিলো না তারা।

সবচেয়ে চমক ছিলো, গ্যালারিতে বল গেলে, সেই বল আর মাঠে ফিরবে না। খেলা হবে নতুন বলে। অজিদের এমন নিয়ম অনেকেই ঠাট্টাও করছেন। কিন্তু বাস্তবতা কি বলে? আসলেই কি মিরপুরের গ্যালারি থেকে বল আনা সম্ভব?

সাধারণত বায়োবাবলের মধ্যে গ্যালারিতে দর্শক থাকে না। তাই অন্যান্য জায়গায় ক্রিকেটারদেরই বল কুড়িয়ে আনতে দেখা গেছে। কিন্তু মিরপুরে তা সম্ভব না। কেননা গ্যালারির চারদিক নেট দিয়ে ঘেরা।

বিকল্প হতে পারতো বল কুড়ানোর জন্য কাউকে রাখা। কিন্তু সেই ব্যক্তিকে পুরোপুরি রাখতে হতো বায়োবাবলে। আর গ্যালারিতে কাজ করেন ফটোগ্রাফাররা, যারা নেই বায়োবাবলে।

খেলা শুরুর আগে নানা কথা শোনা গিয়েছিল, মাঠে ঢুকতে পারবেন না কোনো ক্যামেরা ক্রু, ক্যামেরা। তবে মাঠে দেখা গেছে তাদের, সাথে ছিলেন কমেন্ট্রেটরও। যারা সবাই ছিলেন বায়োবালে।

তবে ড্রেসিং রুমে ক্রিকেটারদের খাবারে জন্য কোনো ক্যাটারিং রাখতে পারেনি বিসিবি। হোটেল থেকে ক্রিকেটাররা খাবার নিয়ে এসেছেন নিজেরাই।

এই কঠিন শর্ত আর নিয়মকানুনের ম্যাচে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো দোর্দণ্ডপ্রতাপশালী অস্ট্রেলিয়াকে হারালো টাইগাররা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply